রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দিয়ে স্থানীয়দের জীবন-জীবিকা হুমকিতে

ঢাকা, শুক্রবার   ২৮ জানুয়ারি ২০২২,   ১৪ মাঘ ১৪২৮,   ২৩ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

Beximco LPG Gas

রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দিয়ে স্থানীয়দের জীবন-জীবিকা হুমকিতে

কক্সবাজার প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৮:১৬ ১৪ জানুয়ারি ২০২২   আপডেট: ১৯:০২ ১৪ জানুয়ারি ২০২২

রোহিঙ্গা ক্যাম্প: ফাইল ফটো

রোহিঙ্গা ক্যাম্প: ফাইল ফটো

রোহিঙ্গা সংকটের চার বছর অতিক্রম করে পঞ্চম বর্ষে পা দিয়েছে। মানবিক কারণে রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দিয়ে সেখানকার লোকজন বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছেন। কেউ হারিয়েছেন জমি কেউবা কর্ম আবার কেউ ঘরের অংশ বিশেষ ও বাড়ির আঙ্গিনা। একদিন দুইদিন নয়, টানা সাড়ে চার বছর স্থানীয়রা রোহিঙ্গাদের সঙ্গে গায়ে গা লাগিয়ে একত্রে বসবাস করলেও ত্রাণ সামগ্রীর সুবিধা ভোগ করছে রোহিঙ্গারা। আর স্থানীয়রা রয়েছেন অনাদরে। শুধু তাই নয়, স্থানীয়দের ভিটেমাটিতেও ভাগ বসিয়েছে তারা।

কক্সবাজার থেকে গাড়িতে করে দক্ষিণ দিকে উখিয়ার কুতুপালং থেকে টেকনাফের নয়াপাড়া মোচনী ক্যাম্প পর্যন্ত প্রায় ৫০ কিলোমিটার বিস্তৃর্ণ এলাকার বনভূমি, খাস জমি মানুষের বসতভিটে, খতিয়ানি জমি ও স্থানীয়দের ঘরের অংশবিশেষ দখল করে বসবাস করছে সাড়ে ১১ লাখ রোহিঙ্গা।

টেকনাফ ও উখিয়ার ভুক্তভোগীরা জানান, স্থানীয়রা গরু-ছাগল, হাঁস-মুরগি কিছু পালতে পারছেন না। দিনে দুপুরে চুরি করে নিয়ে যাচ্ছে রোহিঙ্গারা।

তারা আরো জানান, তারা চার-পাঁচশ টাকায় কাজ করতেন। এখন রোহিঙ্গারা দুই-তিনশ টাকায় কাজ করে। তাই তারা মাসে ১০ দিনের বেশি কাজ পান না। রোহিঙ্গাদের জন্য ত্রাণ নিয়ে আসা গাড়ির ব্যস্ততার ভয়ে তাদের শিশুরা স্কুলে যায় না।

টেকনাফের হ্নীলা ইউপি চেয়ারম্যান রাশেদ মোহাম্মদ আলী বলেন, আমি নিজেও আমার জায়গায় তাদের (রোহিঙ্গা) থাকতে দিয়েছিলাম। মানবিক কারণে তাদের সহযোগিতা করেছি। কিন্তু বর্তমানে তাদের যন্ত্রণায় সেই সহানুভূতি আর নেই। আজ ১১ লাখের বেশি রোহিঙ্গাদের চাপে নিজেদের জীবন ও জীবিকাই হুমকির মুখে পড়েছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএইচ/এমএস

English HighlightsREAD MORE »