ব্যাডমিন্টনে পদবী জালিয়াতি, অভিযোগ-পাল্টা অভিযোগ

ঢাকা, রোববার   ২৩ জানুয়ারি ২০২২,   ৯ মাঘ ১৪২৮,   ১৮ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

ব্যাডমিন্টনে পদবী জালিয়াতি, অভিযোগ-পাল্টা অভিযোগ

এস আই রাসেল ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৯:২৫ ১৩ জানুয়ারি ২০২২   আপডেট: ১৯:৩১ ১৩ জানুয়ারি ২০২২

আমির হোসেন বাহার

আমির হোসেন বাহার

দিনে দিনে তলানিতে পৌঁছে যাচ্ছে বাংলাদেশের ব্যাডমিন্টন। বলা চলে এতে নেই তেমন কোনো সাফল্যও। ফেডারেশন কর্তারা নামমাত্র অংশগ্রহণ ও টুর্নামেন্ট আয়োজনের মাধ্যমেই নিজেদের দায়িত্ব সারছেন। এর মধ্যেই ফেডারেশনের সিনিয়র সহসভাপতি আমির হোসেন বাহারের বিরুদ্ধে এসেছে প্যাড জালিয়াতি করে ভারতের বাংলাদেশ দূতাবাসে চিঠি পাঠানোর অভিযোগ।

সর্বশেষ ২০১৬ সালে অনুষ্ঠিত হয় ফেডারেশনের নির্বাচন। যেখানে সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন এফ এম শামসুল আরেফিন। দায়িত্ব গ্রহণের পরপরই তার মৃত্যু হলে যুগ্ম সাধারণ সম্পাদককে বঞ্চিত করে তার চেয়ারে বসেন আমির হোসেন বাহার।

এদিকে এ মাসেই অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে বহুল অপেক্ষাকৃত বাংলাদেশ ব্যাডমিন্টন ফেডারেশনের নির্বাচন। তা নিয়েই শুরু হয়েছে আলোচনা-সমালোচনা। হচ্ছে অভিযোগ- পাল্টা অভিযোগ।

নির্বাচিত কমিটির মেয়াদ উত্তীর্ণ হয়ে যাওয়ায় ২০২০ সালের ২৭ সেপ্টেম্বর মোহাম্মদ কবিরুল ইসলাম শিকদারকে সাধারণ সম্পাদক এবং আমির হোসেন বাহারকে সিনিয়র সহসভাপতি হিসেবে মনোনয়ন দিয়ে নতুন এডহক কমিটি গঠন করে জাতীয় ক্রীড়া পরিষদ।

আমির হোসেন বাহার স্বাক্ষরিত ফেডারেশনের প্যাডঅভিযোগ আছে, ২০২১ সালের ৪ জানুয়ারি সাধারণ সম্পাদক পদবী ব্যবহার করে ফেডারেশনের প্যাড জাল করে বর্তমান সাধারণ সম্পাদক কবিরুল ইসলাম শিকদারের অগোচরে খেপ খেলতে আসার জন্য ভারতীয় খেলোয়াড় ডুজ্ঞাল এসহান, রানা হার্শ, বোরা শর্মা রাজ, রাওয়াত কাউস্তভকে ভিসা প্রদান করার জন্য ভারতের বাংলাদেশ দূতাবাসে ভিসা অনুরোধপত্র পাঠান আমির হোসেন বাহার। যদিও তিনি এখনো বর্তমান এডহক কিমিটির সিনিয়র সহসভাপতি।

এই চিঠির কারণে নয়া দিল্লিস্থ বাংলাদেশ দূতাবাস এই চার শাটলারকে ভিসা দেয় এবং তারা বাংলাদেশে এসে খেলে যায়। 

সম্প্রতি ব্যাডমিন্টন ফেডারেশনের নির্বাচনের তফশিল ঘোষিত হয়েছে। যেখানে সাধারণ সম্পাদক পদে নির্বাচন করতে যাচ্ছেন আমির হোসেন বাহার। আর এই সময়েই বাহারের বিরুদ্ধে এমন অভিযোগ।

এত বড় বিষয় সম্পর্কে জানেন না বর্তমান সাধারণ সম্পাদক কবিরুল ইসলাম শিকদার। তিনি বলেন, আমি চিঠিটা দেখেছি। তার সাইনের সঙ্গে হুবহু মিলছে। এটা একটি রাষ্ট্রদ্রোহী কাজ। তিনি যদি এটা করে থাকেন তাহলে আমরা এর শাস্তি চাই। আর যদি না করে থাকে তাহলে তা প্রমাণের দায়িত্বও তার।

এই বিষয়ে আমির হোসেন বাহার ডেইলি বাংলাদেশকে বলেন, এটা আমার বিরুদ্ধে একটা ষড়যন্ত্র। এই সাইন আমার না। ফেডারেশনের যে কারো সহযোগিতায় আমার পূর্বের প্যাড সংগ্রহ করে এই কাজ করা হয়েছে। আর চিঠি পাঠানোর এমন কোনো নিয়ম নেই। আমরা সাধারণত জাতীয় ক্রীড়া পরিষদের মাধ্যমেই জিও করাই।

ভারত থেকে বাংলাদেশে খেপ খেলতে আসা শাটলাররাকে বা কারা তার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করতে পারে জানতে চাইলে তিনি অভিযোগের সুরে বলেন, নাজিব ইসমাইল রাসেল নামে ব্যাডমিন্টনের এক আম্পায়ার আমার বিরুদ্ধে এই সব ষড়যন্ত্র করছেন। নির্বাচনে আমাকে হেনস্তা করতেই এসব অপকর্মে তারা লিপ্ত হয়েছেন।

তবে যার বিরুদ্ধে বাহারের পাল্টা অভিযোগ আন্তর্জাতিক সেই আম্পায়ার নাজিব ইসমাইল রাসেল বলেন, এটা সম্পূর্ণ মিথ্যাচার। তিনি ধরা পড়ে এসব বলছেন। তার নিজস্ব স্বার্থের জন্য এমন কথা ছড়াচ্ছেন। এ বিষয়ে আমি কিছুই জানি না। আর বাহারের অপকর্ম সম্পর্কে সবাই জানে। এ নিয়ে আগে-পরে অনেক রিপোর্টও হয়েছে।

আগামী ৩১ জানুয়ারি জাতীয় ক্রীড়া পরিষদে অনুষ্ঠিত হবে ব্যাডমিন্টন ফেডারেশনের নির্বাচন। 

প্রসঙ্গত, এস এ গেমস ২০১০ ও ২০১৬ তে তিনটি করে পদক পেলেও ২০১৯ সালে কাঠমুন্ডুতে অনুষ্ঠিত এস এ গেমসে মাত্র একটি পদক পায় বাংলাদেশ। সাউথ এশিয়ান রিজিউনাল চ্যাম্পিয়নশিপে বাংলাদেশ বরাবর ব্রোঞ্জ পদক পেলেও ২০১৯ সালে মালদ্বীপ, নেপালের মতো দলগুলোর কাছে হেরে পদকশূন্য থাকে বাংলাদেশের শাটলাররা।

ডেইলি বাংলাদেশ/আরএস/এএল

English HighlightsREAD MORE »