‘রসগোল্লা’র মিষ্টিতে কাঁচামরিচের স্বাদ

ঢাকা, বুধবার   ১৯ জানুয়ারি ২০২২,   ৫ মাঘ ১৪২৮,   ১৪ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

‘রসগোল্লা’র মিষ্টিতে কাঁচামরিচের স্বাদ

আব্দুস সাত্তার, রাজশাহী ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৮:১৬ ১৩ জানুয়ারি ২০২২   আপডেট: ১৮:১৯ ১৩ জানুয়ারি ২০২২

শিরোনামে দেখে অবাক হওয়ারই কথা। দুধের মিষ্টিতে আবার ঝাল কাঁচামরিচের স্বাদ হয় কিভাবে? অথচ শুধু কাঁচামরিচই না, পাকা আম-খেজুর গুড়সহ ব্যতিক্রম স্বাদের সব মিষ্টি তৈরি করে সাড়া ফেলেছে ‘রসগোল্লা’ নামে রাজশাহীর একটি মিষ্টির দোকান।

হরেক স্বাদের মিষ্টি চেখে দেখতে নগরীর ভদ্রা রেলগেট এলাকায় অবস্থিত ‘রসগোল্লা’র দোকানে ভিড় করছেন সব বয়সের ক্রেতা।

সরেজমিনে দেখা গেছে, পা ফেলার জায়গা নেই দোকানের ভেতরে। কেউ বসে-দাঁড়িয়ে ভিন্ন স্বাদের এসব মিষ্টি খাচ্ছেন। কেউ আবার পার্সেল করে নিয়ে যাচ্ছেন। ভিন্ন স্বাদের মিষ্টি খেয়ে সবার মুখেই খেলে যাচ্ছে মিশ্র অভিব্যক্তি। 

রাজশাহী এনজিও কর্মী সুব্রত কুমার পাল বলেন, শুধু কাঁচামরিচের মিষ্টি নয়। এখানে আরো নানা স্বাদের মিষ্টি পাওয়া যাচ্ছে। এই দোকানের মিষ্টির মানও ভালো।

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজবিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থী সুমাইয়া আক্তার বলেন, ‘রসগোল্লা’ নামে এ দোকানের রসগোল্লা সবচেয়ে বেশি বিক্রি হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু কাঁচামরিচ, পাকা আম, খেজুর গুড়ের মিষ্টি এত জনপ্রিয় হয়েছে যে অল্প কিছু মানুষ ছাড়া কেউ রসগোল্লা কিনছে না। আমি কিছুদিন আগে এই মিষ্টি খেয়েছি, অসাধারণ টেস্ট ছিল। কিন্তু এখন এসে আর পেলাম না।

রাজশাহী মহানগরীর বালিয়াপুকুর ছোট বটতলার কলেজশিক্ষক নাহিদা আজিজ বলেন, মিষ্টির রঙ যাই হোক না কেন- প্রচারেই প্রসার। রসগোল্লার প্রচারে ভাসছে রাজশাহীসহ সারাদেশ। এ কারণে রসগোল্লা অল্প সময়েই জনপ্রিয় হয়েছে।

হরেক স্বাদের এ মিষ্টির উদ্যোক্তা রাজশাহীর সওদাগর ডোর ও এগ্রো ফার্মের মালিক আরাফাত রুবেল।

তিনি বলেন, আমার একটি গরুর খামার আছে। সে খামারের খাঁটি দুধ থেকেই এসব মিষ্টি তৈরি হয়। মূলত হরেক স্বাদের মিষ্টি তৈরির উদ্দেশ্য ছিল- খাঁটি দুধের ভেজালমুক্ত পণ্য আকর্ষণীয় রূপে ক্রেতাদের মধ্যে ছড়িয়ে দেওয়া।

তিনি আরো বলেন, ব্যতিক্রম মিষ্টি বাজারে নিয়ে আসায় দিনদিন ‘রসগোল্লা’র ভিন্ন স্বাদের মিষ্টির চাহিদা বাড়ছে। ক্রেতাদের চাহিদা পূরণে ‘রসগোল্লা’র আরো কয়েকটি শাখা খোলার পরিকল্পনা রয়েছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/এআর

English HighlightsREAD MORE »