খুলনায় বেড়িবাঁধ ভেঙে দুই গ্রাম প্লাবিত

ঢাকা, শুক্রবার   ২৮ জানুয়ারি ২০২২,   ১৪ মাঘ ১৪২৮,   ২৩ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

Beximco LPG Gas

খুলনায় বেড়িবাঁধ ভেঙে দুই গ্রাম প্লাবিত

খুলনা প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ২০:৪২ ৫ ডিসেম্বর ২০২১  

খুলনায় বেড়িবাঁধ ভেঙে দুই গ্রাম প্লাবিত

খুলনায় বেড়িবাঁধ ভেঙে দুই গ্রাম প্লাবিত

খুলনার কয়রা উপজেলায় বেড়িবাঁধ ভেঙে গাতিরঘেরি ও হরিহরপুর গ্রামের প্রায় ২০০ পরিবার পানিবন্দি হয়ে পড়েছে।

ঠিকাদার প্রতিষ্ঠানের গাফিলতিতে উত্তর বেদকাশী ইউপিতে হরিহরপুর গ্রামে পানি উন্নয়ন বোর্ডের বেড়িবাঁধ ভেঙে লোকালয়ে পানি প্রবেশ করে  

স্থানীয়রদের অভিযোগ, ২৬ মে ঘূর্ণিঝড় ইয়াসের প্রভাবে হরিহরপুর গ্রামের ঐ স্থানে ভেঙে প্লাবিত হয়। কিন্তু এক সপ্তাহ আগে কর্মরত ঠিকাদার প্রতিষ্ঠান জিও টিউবে বালু ভরে পানি মুক্ত করে। কিন্তু মাটির কাজ না করায় ঘূর্ণিঝড় জাওয়ায়েদ এর প্রভাবে শাকবেড়িয়া নদীতে জোয়ারের পানি বৃদ্ধি পেয়ে শনিবার রাতে আবারো বাঁধ ভেঙে হরিহরপুর ও গাতিরঘেরি দুইটি গ্রাম প্লাবিত হয়েছে।

স্থানীয় ধীরেস মাহত বলেন, ঘূর্ণিঝড় ইয়াসের প্রভাবে দুর্বল বেড়িবাঁধ ভেঙে প্রায় সাত মাস শাকবেড়িয়া নদীর পানিতে তলিয়ে থাকি। ঠিকাদার প্রতিষ্ঠান সপ্তাহ খানিক আগে জিও টিউবে বালু ভরে পানি মুক্ত করে। কিন্তু পরবর্তীতে আর মাটির কাজ না করায় আবারও জাওয়াদের সৃষ্ট জলোচ্ছ্বাসে ঐ স্থান দিয়ে বাঁধ ভেঙে প্লাবিত হয়েছে।

ইউপি সদস্য হরষিত কুমার মণ্ডল বলেন, ঠিকাদার প্রতিষ্ঠান দায়সারা ভাবে কাজ করে কোনো রকমে সপ্তাহ খানিক আগে পানিমুক্ত করলেও মাটির কাজ না করায় শনিবার রাতে আবারও প্লাবিত হয়ে হরিহরপুর ও গাঁতিরঘেরি গ্রাম প্লাবিত হয়।

মেসার্স জিয়াউর ট্রেডার্সের প্রতিনিধি বাদশা মিয়া অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, আমরা সঠিক ভাবে কাজ করছি। তবে নদীতে জোয়ারের পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় ভাঙন কবলিত স্থানের জিও টিউবের নিচ থেকে মাটি সরে যাওয়ায় ওই স্থান আবারো ভেঙে প্লাবিত হয়েছে। সোমবার থেকে আবার কাজ শুরু করা হবে। ২-৪ দিনের মধ্যে পানি মুক্ত করা যাবে।

সাতক্ষীরা ডিভিশন-২ সহকারী প্রকৌশলী এস এম মশিউল আবেদীন জানান, মেসার্স জিয়াউল ট্রেডার্স ঐ স্থানে সম্প্রতি জিও টিউবে বালু দিয়ে পানি প্রবেশ বন্ধ করেছে। কিন্তু মাটির কাজ করার আগে, কপোতাক্ষ নদীতে জোয়ারের পানি বৃদ্ধি পেয়ে জিও ব্যাগের নিচ থেকে মাটি সরে যেয়ে আবারো প্লাবিত হয়েছে। তবে অল্প কিছু দিনের মধ্যে ঐ স্থানে কাজ শুরু করা হবে।

ইউএনও অনিমেষ বিশ্বাস বলেন, উত্তর বেদকাশি ইউপির হরিহরপুর গ্রামের একটি স্থানে বেড়িবাঁধ ভেঙে নদীর পানি লোকালয়ে প্রবেশ করেছে। ফলে হরিহরপুর ও গাতিরঘেরি গ্রাম প্লাবিত হয়েছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমকে

English HighlightsREAD MORE »