ম্যানেজিং কমিটির দ্বন্দ্বের জেরে প্রধান শিক্ষক অবরুদ্ধ 

ঢাকা, সোমবার   ১৭ জানুয়ারি ২০২২,   ৩ মাঘ ১৪২৮,   ১২ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

ম্যানেজিং কমিটির দ্বন্দ্বের জেরে প্রধান শিক্ষক অবরুদ্ধ 

বরগুনা প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৬:৫৩ ৫ ডিসেম্বর ২০২১  

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

বরগুনার বেতাগীতে কুমড়াখালি শশীভূষণ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটি নিয়ে দ্বন্দের জেরে প্রধান শিক্ষক মাইনুল ইসলামকে অবরুদ্ধ করে রাখার ঘটনা ঘটেছে। রোববার সকালে উপজেলার  কুমড়াখালি শশীভূষণ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে এ ঘটনা ঘটে। 

জানা গেছে, গত ১৬ নভেম্বর কুমড়াখালি শশীভূষণ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি হিসেবে বোর্ড কর্তৃক জয়ন্তি রানীর নাম অনুমোদন দেওয়া হয়। এ পদে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী হিসেবে কিরণ সরকার রায়ের নামও ছিলো। তবে তিনি একটি মামলার আসামি থাকায় তাকে সভাপতি নির্বাচন করা হয়নি। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে বিদ্যালয়ের সাবেক সভাপতি ফণীভূষণ সিংহ, বিণয় ভূষণ, দীপক কুমার রায়সহ একটি সংঘবদ্ধ দল বিদ্যালয়ের ৮ম শ্রেণির বার্ষিক পরীক্ষা অনুষ্ঠানে বাধা দেয়। এ সময় তারা বিদ্যালয়ের গেটে তালা ঝুলিয়ে দিয়ে প্রধান শিক্ষককে ভেতর থেকে অবরুদ্ধ করে রাখে। 

এ বাপারে প্রধান শিক্ষক মাইনুল ইসলাম বলেন,  কুমড়াখালি শশীভূষণ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের নতুন কমিটি গঠনের পর থেকেই প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী কিরণ সরকার রায় এবং সাবেক সভাপতি ফণীভূষণ রায় একের পর এক টালবাহানা শুরু করতে থাকে। প্রায় এক মাস ধরে বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সাবেক সভাপতি ফণি ভূষণ ও বর্তমান সভাপতি জয়ন্তি রাণীর মধ্যে বিরোধ চলে আসছে। 

বরগুনার বেতাগীতে কুমড়াখালি শশীভূষণ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটি নিয়ে দ্বন্দের জেরে প্রধান শিক্ষক মাইনুল ইসলামকে অবরুদ্ধ করে রাখার ঘটনা ঘটেছে।

পূর্ব ঘোষিত নোটিশ অনুযায়ী, বিদ্যালয়ে ৮ম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের পরীক্ষা নেওয়ার জন্য রোববার সকাল সাড়ে ৮টায় বিদ্যালয়ে যাই। এ সময় সাবেক সভাপতি ফণি ভূষণ ও কমিটির সদস্য বিনয় ভূষণ সিংহসহ ১০-১২ জন লোক এসে আমাকে অকথ্য ভাষায় গালি দিতে থাকে। এক পর্যায়ে তারা বিদ্যালয়ের গেটে তালা লাগিয়ে দেয়। আমি জাতীয় জরুরি সেবা ৯৯৯ নম্বরে ফোন দিয়ে ঘটনাটি জানালে পুলিশ এবং বেতাগী ইউএনও এসে তালা ভেঙে আমাকে উদ্ধার করেন। 

বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি জয়ন্তি রাণী বলেন, ‘ম্যানেজিং কমিটির বিরোধের কারণে বরিশাল শিক্ষাবোর্ড থেকে আমাকে এ্যাডহক কমিটির সভাপতির দায়িত্ব দেওয়া হয়। সভাপতির দায়িত্ব পাওয়ার পর থেকেই বিদ্যালয়ের শিক্ষা কার্যক্রম বন্ধ করতে এবং বিদ্যালয়ের সুনাম ক্ষুন্ন করতে একটি কুচক্রী মহল কাজ করছে। বিদ্যালয়ের শিক্ষা কার্যক্রম চালু রাখতে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করছি।’ 

কুমড়াখালি শশীভূষণ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সাবেক সভাপতি ফণীভূষণ রায়ের সঙ্গে মুঠোফোনে যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলেও তিনি ফোন রিসিভ করেননি। 

উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মো. শহিদুল রহমান বলেন, বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটি নিয়ে দ্বন্দ্বের জেরে একটি ঝামেলা হয়েছিলো। এ সময় একদল বিদ্যালয়ের গেটে তালা গালিয়ে দেয়। ইউএনওকে নিয়ে গিয়ে বিদ্যালয়ের তালা ভেঙে প্রধান শিক্ষককে উদ্ধার করি। 

বেতাগী থানার ওসি মো. শাহ-আলম  বলেন, ‘প্রধান শিক্ষক লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন। তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। 

এ ব্যাপারে ইউএনও মো. সুহৃদ সালেহীন বলেন, বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটি নিয়ে দুপক্ষের বিবাদে ওই বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষককে অবরুদ্ধ করে রাখার ঘটনাটি ঘটে। বাতিল হওয়া ৮ম শ্রেণির পরীক্ষা আগামীকাল সোমবার অনুষ্ঠিত হবে। 

ডেইলি বাংলাদেশ/এমকে

English HighlightsREAD MORE »