দুই বালতিতে যমজ বোনের মরদেহ

ঢাকা, বৃহস্পতিবার   ২০ জানুয়ারি ২০২২,   ৭ মাঘ ১৪২৮,   ১৫ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

দুই বালতিতে যমজ বোনের মরদেহ

চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৫:২৮ ৭ নভেম্বর ২০২১   আপডেট: ১৫:৫১ ৭ নভেম্বর ২০২১

দুই বালতিতে পাওয় যায় যমজ বোনের মরদেহ

দুই বালতিতে পাওয় যায় যমজ বোনের মরদেহ

চাঁপাইনবাবগঞ্জে বাড়ির বাথরুমে দুই বালতিতে যমজ বোনের মরদেহ পাওয়া গেছে। রোববার সকালে উপজেলার পুরাতন সিএনবি ঘাট এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

মৃতরা হলো- সিএনবি ঘাট এলাকার পুলিশের কনস্টেবল এবাদ আলীর মেয়ে সারা ও সাবা। তাদের বয়স তিন বছর। তবে শিশুদের মা ও নানা জানান, বাথরুমে পানি দিয়ে খেলছিল সারা ও সাবা। একপর্যায়ে তারা বালতিতে পড়ে যায় বলে ধারণা করা হচ্ছে।

সারা ও সাবার বাবা কনস্টেবল এবাদ আলী ঢাকায় থাকেন। ওই বাড়িতে দুই মেয়েকে নিয়ে একাই থাকতেন তাদের মা। তবে কাছেই সারা-সাবার নানা ও দাদার বাড়ি।

শিশুদের নানা মাজেদুল ইসলাম জানান, মাসখানেক আগে এ বাড়ির দোতলায় দুই রুম ভাড়া নেন তার মেয়ে। তার মেয়ের জামাই ছুটিতে ঢাকা থেকে সেখানে যেতেন।

শিশুদের মা নাইমা খাতুন জানান, এ বাড়িতে পানি সংকট হয় প্রায়ই। তাই যখন পানি আসে তখন তিনি বালতি ভরে রাখেন।

তিনি জানান, সকালে মেয়েরা বাথরুমে গিয়ে বালতির পানি নিয়ে খেলছিল। তাদের সেখান থেকে সরে আসতে বলে ফ্ল্যাটের বাইরে ময়লা ফেলতে যান তিনি। দু-তিন মিনিট পর ফিরে এসেই দুই বালতিতে দুই মেয়ের মাথা ডুবে থাকতে দেখেন। পা ছিল বালতির বাইরে।

নাইমা আরো জানান, তিনি বাচ্চাদের তুলে মেঝেতে শুইয়ে রেখে তাদের নানা-নানিকে খবর দেন। পরে সবাই তাদের সদর হাসপাতালে নিলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসক নুরুন্নাহার নাসু বলেন, শিশু দুটি মৃত অবস্থায় সকাল ৯টার দিকে হাসপাতালে আনেন স্বজনরা। স্বজনদের ভাষ্য অনুযায়ী শিশু দুটি বালতির পানিতে ডুবে মারা গেছে। তবে ময়নাতদন্তের আগেই মৃত্যুর কারণ সম্পর্কে বলা যাবে না। শিশুটির বাবা ঢাকা থেকে আসছেন। এরপর ময়নাতদন্তের সিদ্ধান্ত হবে।

চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর থানার ওসি মিন্টু রহমান জানান, বিষয়টি খতিয়ে দেখছে পুলিশ। ময়নাতদন্তের পর মৃত্যুর আসল কারণ জানা যাবে।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমআর

English HighlightsREAD MORE »