শাশুড়িকে কুপিয়ে হত্যা ও শ্যালিকার হাত বিচ্ছিন্ন করায় জামাতার ৪০ বছরের কারাদণ্ড

ঢাকা, শুক্রবার   ২২ অক্টোবর ২০২১,   কার্তিক ৭ ১৪২৮,   ১৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

শাশুড়িকে কুপিয়ে হত্যা ও শ্যালিকার হাত বিচ্ছিন্ন করায় জামাতার ৪০ বছরের কারাদণ্ড

কক্সবাজার প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৯:৫২ ১৩ অক্টোবর ২০২১   আপডেট: ১৯:৫৩ ১৩ অক্টোবর ২০২১

জেলা জজ আদালত, কক্সবাজার

জেলা জজ আদালত, কক্সবাজার

কক্সবাজারের টেকনাফে শাশুড়িকে দা দিয়ে কুপিয়ে হত্যা এবং দায়ের কোপে শ্যালিকার হাত বিচ্ছিন্ন করার মামলায় শামসুল আলম নামে একজনকে ৪০ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছে আদালত। এর মধ্যে শাশুড়িকে হত্যা দায়ে ৩০ বছর ও শ্যালিকার হাত বিচ্ছিন্ন করার দায়ে ১০ বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।

বুধবার দুপুরে আসামির উপস্থিতিতে এ রায় দেন কক্সবাজার জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক মোহাম্মদ ইসমাঈল।

এর আগে, ২০১৩ সালের ১১ ডিসেম্বর সীমানা বিরোধের জেরে টেকনাফ সদর ইউনিয়নের খোন্দকার পাড়ায় এ হত্যাকাণ্ড ঘটে। সাজাপ্রাপ্ত শামসুল একই গ্রামের জহির আহম্মদ মিস্ত্রীর ছেলে।

নিহতের স্বামী আবদুল গফুর বলেন, শামসুল আলম আমার মেয়ের স্বামী। প্রতিবেশী হওয়ায় তাদের সঙ্গে আমাদের সীমানা নিয়ে বিরোধ ছিল। এরই জেরে দিন-দুপুরে আমার স্ত্রীকে কুপিয়ে হত্যা এবং আমার ছোট মেয়ের হাত বিচ্ছিন্ন করে শামসুল।

আদালতের পিপি ফরিদুল আলম বলেন, হত্যা ও হত্যা চেষ্টা মামলায় শামসুল আলমকে পৃথকভাবে ৪০ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছে আদালত।

ডেইলি বাংলাদেশ/এআর