ঝগড়া থামাতে গিয়ে প্রাণ গেল বৃদ্ধার

ঢাকা, মঙ্গলবার   ২৬ অক্টোবর ২০২১,   কার্তিক ১২ ১৪২৮,   ১৮ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

ঝগড়া থামাতে গিয়ে প্রাণ গেল বৃদ্ধার

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ২০:৫২ ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১  

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইলে ঝগড়া থামাতে গিয়ে প্রতিপক্ষের ধাক্কায় আয়েশা বেগম নামে এক বৃদ্ধার মৃত্যু হয়েছে

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইলে ঝগড়া থামাতে গিয়ে প্রতিপক্ষের ধাক্কায় আয়েশা বেগম নামে এক বৃদ্ধার মৃত্যু হয়েছে

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইলে ঝগড়া থামাতে গিয়ে প্রতিপক্ষের ধাক্কায় আয়েশা বেগম নামে এক বৃদ্ধার মৃত্যু হয়েছে। রোববার বিকেলে সরাইলের পানিশ্বর এ ঘটনা ঘটে। বৃদ্ধার মৃত্যুর ঘটনার খবর পাওয়ার পর উভয়পক্ষ আবারো সংর্ঘষে লিপ্ত হয়। এতে অন্তত ১০ জন আহত হয়। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

মৃত আয়েশা বেগমের নাতি শ্যামল মিয়া জানান, সরাইলের পানিশ্বর গ্রামের হুজুর বাড়ির দক্ষিণ পাড়ার বিল্লাল মিয়ার ছেলে সাদ্দাম ও শফিকের সঙ্গে উত্তর পাড়া ইউনূছ মিয়ার ছেলে জামাল মিয়া ঢাকায় একটি জুতার কারখানায় কাজ করতেন। গত ১ মাস আগে তারা কারখানায় তুচ্ছ ঘটনা নিয়ে তাদের মধ্যে কথা কাটাকাটি ও হাতাহাতির ঘটনা ঘটে।

ওই ঘটনা পর ১মাস আগে তাদের গ্রামের বাড়ি ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইলের পানিশ্বরে জানাজানি হলে দুই পাড়ার আত্বিয়স্বজনসহ তাদের সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। ওই ঘটনায় একটি মামলা করা হয়। রোববার দুপুরে ব্রাহ্মণবাড়িয়া আদালতে আসামিরা তাদের হাজিরা দিতে আসে। হাজিরা দিয়ে বাড়িতে ফেরার পর দক্ষিণ পাড়ার ইউনূছের সঙ্গে উত্তর পাড়ার শফিকের প্রথমে কথা কাটাকাটি হয়। পরে তারা হাতাহাতিতে লিপ্ত হয়। এ সময় তাদের ঝগড়া থামাতে যায় সাদ্দাম মিয়ার পক্ষের বৃদ্ধা আয়েশা বেগম। এ সময় প্রতিপক্ষ ইউনূছ মিয়ার লোকজনের ধাক্কায় আয়েশা বেগম মাটিতে পড়ে গুরুতর আহত হয়। পরে বিকেলে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেনারেল হাসপাতাল আনার পর বৃদ্ধা আয়েশা বেগম মারা যায়।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেনারেল হাসপাতালের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক ডা. ফায়েজুর রহমান ফয়েজ বলেন, ওই বৃদ্ধাকে হাসপাতালে নিয়ে আসার আগেই তার মৃত্যু হয়েছে। আমরা তাকে মৃত অবস্থায় পেয়েছি। বৃদ্ধার বুকে আঘাতজনিত কারণে মৃত্যু হয়েছে থাকতে পারে।

এ ব্যাপারে পনিশ্বর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান দ্বীন ইসলাম জানান, বৃদ্ধা আয়েশার মৃত্যুর খবর পাওয়ার পর বিকেলে দুইপক্ষ আবারো সংঘর্ষে লিপ্ত হয়। এতে উভয়পক্ষের অন্তত ১০ জন আহত হয়। পরে পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে সরাইল সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার মো. আনিসুর রহমান জানান, বৃদ্ধার মৃত্যুর ঘটনা নিয়ে দুইপক্ষের মধ্যে সংর্ঘষের খবর পেয়ে সরাইল থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে। ঘটনাস্থলে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএইচ