ভাড়া না পেয়ে দুই শিশুকে মেঘনা নদীতে ফেলে দিলেন লঞ্চ কর্মীরা

ঢাকা, বৃহস্পতিবার   ২১ অক্টোবর ২০২১,   কার্তিক ৭ ১৪২৮,   ১৩ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

ভাড়া না পেয়ে দুই শিশুকে মেঘনা নদীতে ফেলে দিলেন লঞ্চ কর্মীরা

মুন্সিগঞ্জ প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১১:২৮ ১২ সেপ্টেম্বর ২০২১  

দুই শিশুকে উদ্ধার করে পুলিশ

দুই শিশুকে উদ্ধার করে পুলিশ

ভাড়া না থাকায় দুই শিশুকে লঞ্চ থেকে মেঘনা নদীতে ফেলে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে কর্মচারীদের বিরুদ্ধে। ভাসতে থাকা দুই শিশুকে মুন্সিগঞ্জের গজারিয়ায় মেঘনা নদী থেকে তাদের উদ্ধার করেছে পুলিশ।

শনিবার রাতে এ তথ্য নিশ্চিত করেন গজারিয়া থানার ওসি মো. রইছ উদ্দিন। দুই শিশু হলো- ১৩ বছর বয়সী মেহেদুল হাসান ও ১২ বছরের সাকিব হাসান।

ওসি জানান, দুই শিশু সদরঘাট এলাকায় থাকে। তারা লঞ্চে পানি বিক্রি করে। শনিবার সকালেও রাজধানীর সদরঘাট থেকে ছেড়ে আসা চাঁদপুরগামী ইমাম হাসান-৫ লঞ্চে পানি বিক্রি করছিল শিশু দুটি। এ সময় ভাড়া চেয়ে না পাওয়ায় তাদের মাঝ নদীতে ফেলে দেন লঞ্চ কর্মচারীরা।

মো. রইছ উদ্দিন বলেন, আমরা দুজনকেই নিরাপদে উদ্ধার করে মুন্সিগঞ্জ লঞ্চঘাটে নিয়ে যাই। সেখানে তাদের আত্মীয়-স্বজনের সঙ্গে কথা বলে ঢাকা-সদরঘাটগামী এমভি আল-বোরাক লঞ্চে উঠিয়ে দেওয়া হয়।

এ ঘটনার একটি ভিডিও ফেসবুকে প্রকাশ করেছে গজারিয়া থানা পুলিশ। ভিডিওতে দেখা যায়, গজারিয়া থানার ওসি দুই শিশুকে প্রশ্ন করছেন। জবাবে শিশুরা জানায়, ইমাম হাসান-৫ এর লঞ্চের স্টাফরা তাদের নদীতে ফেলে দিয়েছেন। তারা টাকা না দিয়ে ছাদে ওঠ্য় ফেলে দেন।

এ অভিযোগ অস্বীকার করেছেন ইমাম হাসান-৫ লঞ্চের মাস্টার মো. দেলোয়ার হোসেন। তিনি বলেন, দুই শিশু নিজেদের ইচ্ছায় নদীতে ঝাঁপ দিয়েছে। যাত্রীরা আমাদের জানিয়েছেন। তাদের ফেলে দেওয়া হয়নি। সব যাত্রীরা দেখেছেন। আমরা ফেলে দিলে যাত্রীরা আমাদের বাধ্য করে লঞ্চ থামিয়ে দিতে পারতেন। এছাড়া এসব পানি বিক্রেতার কাছ থেকে ভাড়া নেয়া হয় না।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমআর