বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করে দেশের অগ্রযাত্রা রুখে দিয়েছিল খুনিরা: মাহমুদা বেগম কৃক

ঢাকা, বুধবার   ২৭ অক্টোবর ২০২১,   কার্তিক ১৩ ১৪২৮,   ১৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করে দেশের অগ্রযাত্রা রুখে দিয়েছিল খুনিরা: মাহমুদা বেগম কৃক

ফরিদপুর প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ২০:৩৪ ৩০ আগস্ট ২০২১   আপডেট: ২০:৩৫ ৩০ আগস্ট ২০২১

ফরিদপুর জেলা মহিলা আওয়ামী লীগ আয়োজিত জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে এক আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন মহিলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মাহমুদা বেগম কৃক

ফরিদপুর জেলা মহিলা আওয়ামী লীগ আয়োজিত জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে এক আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন মহিলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মাহমুদা বেগম কৃক

মহিলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মাহমুদা বেগম কৃক বলেছেন, বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করে জিয়াউর রহমানের নেতৃত্বে দেশের উন্নয়নের অগ্রযাত্রাকে রুখে দিয়েছিল খুনীরা। দেশে সন্ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করেছিল। ওরা মনে করেছিল বঙ্গবন্ধুকে হত্যার মধ্য দিয়েই সব শেষ করে দিতে পেরেছে। কিন্তু ওরা জানত না বঙ্গবন্ধু মানেই বাংলাদেশ।

সোমবার বিকেলে ফরিদপুর শহরের কবি জসীম উদ্দীন হলে জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে এক আলোচনা সভায় এসব কথা বলেন তিনি। ফরিদপুর জেলা মহিলা আওয়ামী লীগ আয়োজিত এ সভায় সভাপতিত্ব করেন জেলা মহিলা লীগের সদস্য সচিব আইভি মাসুদ।

মাহমুদা বেগম কৃক বলেন, ১৫ আগস্ট এক বেদনাবিধুর অধ্যায়। এদিন আমরা বাংলাদেশের স্থপতিকে হারিয়েছিলাম। সেদিন সামান্যতম রাষ্ট্রীয় মর্যাদাও দেওয়া হয়নি এ মহান নেতার বিদায় লগ্নে। বেজে ওঠেনি করুণ সুরের বিউগল।

তিনি আরো বলেন, বাবার মতোই আন্দোলন-কারাবরণ করে, অনেক নেতাকর্মীর ত্যাগ-তিতিক্ষার মধ্য দিয়ে ক্ষমতায় এসেছেন বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনা। ক্ষমতায় এসে তিনি নারীর ক্ষমতায়ন নিশ্চিত করেছেন। শেখ হাসিনার সরকারের আমলেই দেশে নারীর মর্যাদা প্রতিষ্ঠিত হয়েছে।

মাহমুদা বেগম কৃক বলেন, ২১ আগস্ট শেখ হাসিনাসহ আওয়ামী লীগের সব শীর্ষ নেতার ওপর হামলার সঙ্গে তারেক রহমান জড়িত ছিলেন। হাওয়া ভবনে বসেই গ্রেনেড হামলার ষড়যন্ত্র হয়েছিল।

সভায় আরো বক্তব্য রাখেন জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট সুবল চন্দ্র সাহা, সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ মাসুদ হোসেন, সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট কামালউদ্দিন আহমেদ, যুগ্ম সম্পাদক ঝর্ণা হাসান ও মাইনুদ্দিন আহমেদ মানু, দফতর সম্পাদক অনিমেষ রায়, জেলা যুবলীগের সভাপতি জিয়াউল হাসান মিঠু, জেলা কৃষক লীগের সভাপতি শহিদুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক প্রদীপ কুমার লক্ষণ, জেলা শ্রমিক লীগের সভাপতি মো. আক্কাস হোসেন, শহর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মনিরুজ্জামান মনির, আলফাডাঙ্গা থানা মহিলা লীগের সভাপতি মনোয়ারা বেগম প্রমুখ।

ডেইলি বাংলাদেশ/এআর