বিয়েবাড়িতে কবরের সারি, থামছে না কান্না

ঢাকা, রোববার   ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১,   আশ্বিন ৪ ১৪২৮,   ১০ সফর ১৪৪৩

বিয়েবাড়িতে কবরের সারি, থামছে না কান্না

চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ২০:১২ ৫ আগস্ট ২০২১   আপডেট: ২০:৩৪ ৫ আগস্ট ২০২১

বাড়ির উঠানে খুঁড়ছিল কবর

বাড়ির উঠানে খুঁড়ছিল কবর

বিয়েবাড়িতে আনন্দের শেষ ছিল না। তিন-চারদিন আগ থেকেই ধুমধাম আয়োজন চলছিল। কনে আনার জন্য বরযাত্রীও রওনা দেন। তবে একটি বজ্রপাত নিমিষেই সব লণ্ডভণ্ড করে দিল। চোখের সামনে একে একে ১৬ জনকে হারিয়েছেন বর।

চাঁপাইনবাবগঞ্জে বিয়ের অনুষ্ঠানে যাওয়ার সময় বজ্রপাতে মারা যাওয়া ১৬ জনের বাড়িতেই চলছে শোকের মাতম। অভিভাবক হারিয়ে কী করবেন বুঝে উঠতে পারছেন না তবজুলের নাতনি সেলিনা খাতুন। একই ঘটনায় নিজের বাবা আর স্বামীকেও হারিয়েছেন তিনি।

সেলিনা বলেন, আমার এখন আর কোনো আশ্রয় নেই। স্বামী, বাবা, নানা-নানি, মামা-মামি, খালা সবাইকে হারিয়েছি। এখন আমার কী হবে জানি না।

স্বজন হারানো সেলিনার কান্নায় ভারী হয়ে উঠেছে পুরো গ্রাম। তার আহাজারিতে এলাকাবাসীও চোখের পানি থামাতে পারছেন না।

বৃহস্পতিবার সকালে এমনই দৃশ্য দেখা মেলে চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর উপজেলার সূর্য নারায়ণপুর গ্রামে বর আল মামুনের নানার বাড়িতে। বরের নানা তবজুল ইসলামসহ এক বাড়িরই সাত সদস্যের মৃত্যু হয়েছে। তবজুল ইসলামের বাড়ির উঠানেই ছয়জনকে দাফন করা হয়েছে।

একই অবস্থা ডাইলপাড়া গ্রামে বর আল মামুনের বাড়িতেও। বজ্রপাতে নিজের বাবাকেও হারিয়েছেন তিনি। সঙ্গে আরো ১৬ স্বজনকে হারিয়ে তিনি পাগলপ্রায়। এভাবেই জীবনের আনন্দের দিন বিষাদে পরিণত হবে তা কল্পনাও করতে পারেননি মামুন।

চাঁপাইনবাবগঞ্জের ডিসি মো. মঞ্জুরুল হাফিজ জানান, মৃতদের পরিবারকে ২৫ হাজার টাকা করে অনুদান দেওয়া হয়েছে। এ ঘটনায় আহতদেরও খোঁজখবর নেয়া হচ্ছে।

বুধবার নৌকায় করে সদর উপজেলার নারায়ণপুর থেকে পার্শ্ববর্তী শিবগঞ্জ উপজেলার পাকা এলাকায় কনে আনতে যাচ্ছিলেন বরযাত্রী। ওই সময় বজ্রপাতে পাঁচ নারীসহ ১৬ জনের মৃত্যু হয়।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমআর