প্রধানমন্ত্রীর উপহারের ঘর পেয়ে আনন্দিত ১২৫ পরিবার

ঢাকা, রোববার   ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১,   আশ্বিন ৫ ১৪২৮,   ১০ সফর ১৪৪৩

প্রধানমন্ত্রীর উপহারের ঘর পেয়ে আনন্দিত ১২৫ পরিবার

কুমিল্লা প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ২০:৪৭ ২ আগস্ট ২০২১   আপডেট: ১৮:১৯ ৩ আগস্ট ২০২১

মুজিববর্ষে প্রধানমন্ত্রীর দেওয়া উপহার ‘মাথা গোঁজার ঠাঁই’ পেয়ে খুশি ১২৫ পরিবার

মুজিববর্ষে প্রধানমন্ত্রীর দেওয়া উপহার ‘মাথা গোঁজার ঠাঁই’ পেয়ে খুশি ১২৫ পরিবার

কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপহার দু’কক্ষ বিশিষ্ট সেমি পাকা ঘর পেয়ে আনন্দিত ভূমিহীন-গৃহহীন এমন ১২৫টি পরিবার। ‘আশ্রয়ণের অধিকার- শেখ হাসিনা উপহার’ এই স্লোগান বাস্তবায়নে মুজিব শতবর্ষ উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রীর আশ্রয়ণ-২ প্রকল্পের আওতায় গৃহহীনদের মাঝে এসব ঘর নির্মাণ করে দেয়া হয়। 

মুজিববর্ষে প্রধানমন্ত্রীর দেওয়া উপহার ‘মাথা গোঁজার ঠাঁই’ পেয়ে কাশিনগর ইউপির সাজেদা বেগম বলেন, সন্তানদের নিয়ে অন্যের জমিতে আর থাকতে হবে না। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জমিসহ ঘর দিয়েছে। এখন আমি আর ভূমিহীন-গৃহহীন না। আমি প্রধানমন্ত্রীর দীর্ঘায়ু কামনা করি।

আবুল খায়ের বলেন, আমার জায়গা-জমি ছিল না। নদীর পাড়ে থাকতাম। জীবনে অনেক কষ্ট করেছি। প্রধানমন্ত্রী জায়গা দিয়েছে, ঘর দিয়েছে আমি তাতে অনেক খুশি। তার জন্য নামাজ পড়ে মোনাজাত করব। আমাদের মতো গরিবদের পাশে যেন তিনি সারাজীবন থাকতে পারেন। আমাদের চোখের পানিটা যেন মুছে যায়। দোয়া করি প্রধানমন্ত্রী সারা পৃথিবীর কাছে সম্মান পায়।

হাজেরা বেগম বলেন, আমাদের সংসারে পাঁচজন লোক। মাঠে ঘাটে কাজ করে খাই। আমার কোনো জমি নেই। প্রধানমন্ত্রী জমি দেছে, ঘর দেছে। এ পেয়ে আমি খুব খুশি। বিনামূল্যে জমি-ঘর পাব কোনোদিন ভাবিনি।

কাশিনগর ইউপিতে প্রধানমন্ত্রীর আশ্রয়ণ-২ প্রকল্পের আওতায় ঘর পরিদর্শনে এসে ইউএনও এসএম মনজুরুল হক বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রী সারাদেশে ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারকে জমিসহ ঘর প্রদানের উদ্যোগ নেন। তারই অংশ হিসেবে উপজেলায় দ্বিতীয় ধাপে ১৮৫টি ঘরের মধ্যে ১২৫টি পরিবারকে ঘর প্রদান করা হয়েছে। ঘরের কাজ অনেক ভালো হয়েছে, নতুন ঘরে উপকারভোগীরা অনেক খুশি। বাকি পরিবারকে দ্রুততম সময়ে জমি ও ঘর হস্তান্তর করা হবে।

কাশিনগর ইউপি চেয়ারম্যান মোশারেফ হোসেন বলেন, প্রধানমন্ত্রীর আশ্রয়ণ-২ প্রকল্পের আওতায় ভূমিহীন-গৃহহীনদের জমিসহ ঘর করে দেওয়া এটা প্রধানমন্ত্রীর স্বপ্নের প্রকল্প। কাশিনগর ইউপির ২৮টি ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবার জমিসহ ঘর পেয়েছে। ২২টি পরিবারকে ঘর বুঝিয়ে দেওয়া হয়েছে। তারা নতুন ঘরে উঠে এখন খুশিতে আত্মহারা।

তিনি আরো বলেন, ক্ষতিগ্রস্ত ভূমিহীন-গৃহহীনদের ভিজিডি কার্ড করে দিয়েছি। হাঁস, মুরগি পালন করে তারা যাতে স্বাবলম্বী হতে পারে সেজন্য তাদেরকে অর্থ সহায়তা প্রদান করেছি। তাছাড়া বিভিন্ন ধরনের সবজির বীজ দিয়েছি ও গাছের চারা প্রদান করেছি।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমকে/টিআরএইচ