দুধের সঙ্গে ঘুমের ওষুধ খাইয়ে স্বামীকে হত্যা করেন রুবি, ৪১ দিন পর দায় স্বীকার

ঢাকা, সোমবার   ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১,   আশ্বিন ১৩ ১৪২৮,   ১৮ সফর ১৪৪৩

দুধের সঙ্গে ঘুমের ওষুধ খাইয়ে স্বামীকে হত্যা করেন রুবি, ৪১ দিন পর দায় স্বীকার

মাদারীপুর প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৭:১৩ ২ আগস্ট ২০২১   আপডেট: ১৭:১৪ ২ আগস্ট ২০২১

স্বামী হত্যায় গ্রেফতারকৃত রুবি বেগম

স্বামী হত্যায় গ্রেফতারকৃত রুবি বেগম

মাদারীপুরের কালকিনিতে মো. নাজিমউদ্দিন কাজী নামের এক যুবকের ‘মৃত্যুর’ রহস্য উদঘাটন করেছে পুলিশ। দুধের সঙ্গে ঘুমের ওষুধ খাইয়ে তাকে হত্যা করেছেন বলে স্বীকার করেছেন নিহতের স্ত্রী রুবি বেগম।

ঘটনার ৪১ দিন পর রোববার বিকেলে দায় স্বীকার করেন রুবি। সোমবার দুপুরে আদালতের মাধ্যমে তাকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

নিহতের পরিবার সূত্রে জানা গেছে, চার বছর আগে কালকিনি উপজেলার পূর্ব এনায়েতনগর ইউনিয়নের পূর্ব আলীপুরের মান্নান কাজীর ছেলে নাজিমউদ্দিন কাজীর সঙ্গে একই এলাকার কামাল সিকদারের মেয়ে রুবি বেগমের বিয়ে হয়। গত ২১ জুন রাতে নাজিমউদ্দিন স্ট্রোক করে মারা যান বলে পরিবারের সদস্য ও প্রতিবেশীদের কাছে প্রচার করেন রুবি বেগম। পরে তার লাশ স্বাভাবিকভাবে দাফন করা হয়।

নাজিমউদ্দিনের মৃত্যু নিয়ে স্বজনদের মধ্যে সন্দেহ দেখা দেয়। তাদের ধারণা- পরকীয়ার জেরেই তাকে হত্যা করা হয়েছে। ৪১ দিন পর রোববার বিকেলে স্বজন ও স্থানীয়দের তোপের মুখে স্বামী হত্যার দায় স্বীকার করেন রুবি বেগম। বিষয়টি থানায় জানালে সন্ধ্যার পর রুবি বেগমকে থানায় নিয়ে যায় পুলিশ। পরে নিহতের ভাই নাঈম কাজী বাদী হয়ে রুবিকে আসামি করে হত্যা মামলা করেন।

স্বীকারোক্তিতে রুবি বেগম জানান, আলীপুর মোল্লারহাট বাজারের ওষুধের দোকানের মালিক আব্দুল আলীর কাছ থেকে ঘুমের ওষুধ এনে দুধের সঙ্গে মিশিয়ে নাজিমউদ্দিন কাজীকে খাইয়ে অচেতন করে হত্যা করা হয়।

নিহতের ভাই নাঈম কাজী বলেন, আমাদের আগেই সন্দেহ হয়েছিল নাজিমউদ্দিনকে হত্যা করা হয়েছে। রোববার সন্ধ্যায় রুবিকে জিজ্ঞাসাবাদ করলে সে ঘুমের ওষুধ খাইয়ে আমার ভাইকে হত্যা করেছে বলে স্বীকার করে। তার বিরুদ্ধে আমি হত্যা মামলা করেছি।

কালকিনি থানার ওসি ইশতিয়াক আশফাক রাসেল বলেন, নিহতের ভাই হত্যা মামলা করেছেন। জিজ্ঞাসাবাদে স্বামীকে হত্যার কথা স্বীকার করেছেন রুবি বেগম। তাকে গ্রেফতার দেখিয়ে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/এআর