তেলবাজি-গ্রুপিংয়ে দুর্বল হয়ে পড়েছে জামালপুর কৃষক দল

ঢাকা, শুক্রবার   ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১,   আশ্বিন ৯ ১৪২৮,   ১৫ সফর ১৪৪৩

তেলবাজি-গ্রুপিংয়ে দুর্বল হয়ে পড়েছে জামালপুর কৃষক দল

জামালপুর প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১২:৫২ ২৭ জুলাই ২০২১   আপডেট: ১৬:০৭ ২৭ জুলাই ২০২১

কৃষক দলের লোগো

কৃষক দলের লোগো

তেলবাজ-সুবিধাবাদী নেতাকর্মীদের কারণে অস্তিত্ব হারাতে বসেছে জামালপুর জেলা কৃষক দল। নেতার যেকোনো সিদ্ধান্তে এই দলের কর্মীদের ‘জি ভাই, সহমত ভাই’ বলতেই হয়। কেউ ‘না’ বললেই তার ওপর নেমে আসে শনির দশা।

আবার তেলবাজ-সুবিধাবাদীদের কারণে অনেক সক্রিয় ও ত্যাগী নেতাকে দল থেকে বাদ দেওয়ার নজিরও রয়েছে।

এভাবে দিনে দিনে দুর্বল হয়ে পড়েছে জেলা কৃষক দল। ফলে খুঁড়িয়ে খুঁড়িয়ে চলছে দলটির রাজনীতি। জেলা কৃষক দলের সভাপতি ইঞ্জিনিয়ার আব্দুস সালাম অধিকাংশ সময় ঢাকায় অবস্থান করলেও বর্তমানে তিনি অসুস্থ। এ অবস্থায় দলের কার্যক্রম মুখে মুখেই সীমাবদ্ধ। এছাড়া গ্রুপিং তো আছেই। কেন্দ্র থেকে মাজেদুল ইসলাম সাত্তারকে আহ্বায়ক করে নতুন কমিটি করার কথা বললেও বাধা হয়ে দাঁড়িয়েছেন জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট শাহ ওয়ারেছ আলী মামুন।

দলীয় সূত্রে জানা গেছে, ২০১৯ সালে জামালপুর কৃষক দলের সম্মেলন হয়। সম্মেলনে ইঞ্জিনিয়ার আব্দুস সালামকে সভাপতি ও মাজেদুল ইসলাম সাত্তারকে সাধারণ সম্পাদক করে পাঁচ সদস্যের কমিটি ঘোষণা করা হয়। এর দুই বছর পরও আলোর মুখ দেখেনি পূর্ণাঙ্গ কমিটি। এছাড়া সাধারণ সম্পাদক মাজেদুল ইসলাম সাত্তার পৃথক কর্মসূচি পালন করায় সভাপতি পড়েছেন বেকায়দায়।

দলের সহ-সভাপতি করা হয়েছে রেলওয়ে স্কুলের শিক্ষক ছালেহীন মাসুদকে। ভাড়া করে আনা যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মতিয়র রহমান বাবলু থাকেন মেলান্দহ উপজেলা সদরে। আরেকজনের কোনো খবর নেই। কমিটিতে মাত্র পাঁচজন সদস্য, তারাও আছেন যে যার মতো। সাধারণ সম্পাদক মাজেদুল ইসলাম সাত্তার এককভাবে শহরের নিরালা পার্ক এলাকায় মাঝেমধ্যে কর্মসূচির ডাক দিলেও বাকিরা থাকেন চুপচাপ। ফলে আস্তে আস্তে দল এগোচ্ছে অজানা গন্তব্যে।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে কৃষক দলের এক নেতা বলেন, গণতন্ত্রের কথা বলে মুখে ফেনা তুললেও দলের ভেতরে কোনো গণতন্ত্র নেই। জেলা বিএনপি ও বাকি অঙ্গ-সংগঠনের কোনো নেতাকর্মী অ্যাডভোকেট শাহ মো. ওয়ারেছ আলী মামুনের বাইরে কথা বলতে পারেন না। কেউ কিছু বলেই তাকে কোণঠাসা করে রাখা হয়।

অপর এক নেতা বলেন, দেশে করোনা মহামারি চললেও প্রথম সারির নেতাদের মাঠে দেখা যায়নি। জামালপুর পৌর এলাকায় অনেক দরিদ্র কর্মী আছে, তাদের খোঁজ নেন না কেউ। এছাড়া নেতাদের সঙ্গে কেউ দেখা করতে গেলেও দুর্ব্যবহার করা হয়।

ডেইলি বাংলাদেশ/এআর/এইচএন