সবাইকে কাঁদিয়ে বিদায় নিলেন এসিল্যান্ড

ঢাকা, সোমবার   ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১,   আশ্বিন ১২ ১৪২৮,   ১৮ সফর ১৪৪৩

সবাইকে কাঁদিয়ে বিদায় নিলেন এসিল্যান্ড

নরসিংদী প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৭:৪৯ ২৬ জুলাই ২০২১  

নরসিংদী সদরের বিদায়ী এসিল্যান্ড শাহ্ আলম মিয়া

নরসিংদী সদরের বিদায়ী এসিল্যান্ড শাহ্ আলম মিয়া

নতুন কর্মস্থলে যোগ দিতে সবাইকে কাঁদিয়ে বিদায় নিলেন নরসিংদী সদর উপজেলার সহকারী কমিশনার ( এসিল্যান্ড) শাহ্ আলম মিয়া। রোববার স্বাস্থ্য বিধি মেনে আনুষ্ঠানিকভাবে বিদায় নেন তিনি। 

শাহ আলম মিয়া ৩৪ তম বিসিএস প্রশাসন ক্যাডারের একজন সদস্য। ২০১৯ সাল থেকে নরসিংদী সদর উপজেলা সহকারী কমিশনার ভূমি হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। সম্প্রতি ফরিপুর জেলা প্রশাসক কার্যালয়ে বদলি হয়েছেন মাঠ পর্যায়ে সরকারের নির্দেশনা বাস্তবায়নে কাজ করা এ নন্দিত কর্মকর্তা। সততা, দক্ষতা ও আন্তরিকতা দিয়ে নরসিংদীবাসীর ভালোবাসা জয় করে বিদায়লগ্নে প্রশংসায় ভাসলেন তিনি।

বিশেষ করে সদর উপজেলার কয়েক শত কোটি টাকা মূল্যের সরকারি খাস জমি উদ্ধার, নামজারি জমাভাগ খারিজ সংক্রান্ত মামলা শুনানির মাধ্যমে দ্রুত নিষ্পত্তি, ভূমি নিয়ে স্থানীয় বিরোধের অবসান, স্বচ্ছতার সঙ্গে ভূমি সেবা প্রদান, সহজীকরণ, সরকারি রাজস্ব বৃদ্ধিতে বিশেষ ভূমিকা রাখা, ভূমিহীন পরিবারগুলোর মধ্যে খাস জমি বন্দোবস্ত ব্যবস্থা করাসহ করোনাভাইরাস প্রতিরোধে মাঠ পর্যায়ে সম্মুখসারির করোনাযোদ্ধার দায়িত্ব পালনের পাশাপাশি কুইক রেসপন্স টিমের আহ্বায়ক হিসেবে করোনায় মৃতদের দাফন ও সৎকার করে জেলাজুড়ে ব্যাপক আলোচনায় আসেন তিনি। এছাড়া প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ উদ্যোগে হতদরিদ্র গৃহহীন পরিবারের জন্য পাকা ঘর নির্মাণ প্রকল্পে কঠোর নজরদারি, কাজের স্বচ্ছতা, টেকসই, মজবুত ও দুর্যোগসহনীয় গুণগতমান ঠিক রেখেছেন।

ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে মাধবদীতে ব্রহ্মপুত্র নদীর দুইপাড়ে সাত কিলোমিটার অংশে প্রায় সাড়ে পাঁচশত অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ, ভেজালবিরোধী অভিযান, পরিবেশ রক্ষায় অভিযান, অবৈধ বালু উত্তোলনে অভিযান, বাল্যবিয়ে, ইভটিজিং প্রতিরোধে তার ভূমিকা ছিল অত্যন্ত প্রশংসনীয়।

নরসিংদী সরকারি কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ প্রফেসর মোহাম্মদ আলী বলেন, জেলা প্রশাসনের অর্পিত দায়িত্ব পালনে তিনি সচেষ্ট ছিলেন। এসিল্যান্ডের দায়িত্ব নেয়ার পর থেকে তিনি ভূমি অফিসে স্বচ্ছ পরিবেশ সৃষ্টি করেছেন। করেনাকালে জনসচেতনতা বৃদ্ধি, সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিতকরণ, করোনায় মৃতদের স্বাস্থ্য বিধি মেনে দাফন ও সৎকারসহ বিভিন্ন কর্মকাণ্ডে তিনি বলিষ্ঠ ভূমিকা রেখেছেন।

নরসিংদী ইনডিপেনডেন্ট কলেজের অধ্যক্ষ ড. মশিউর রহমান মৃধা জানান, এসিল্যান্ড শাহ্ আলম মিয়া অত্যন্ত মেধাবী ও গতিশীল নেতৃত্বের অধিকারী। ভূমি ডিজিটাইজেশন থেকে শুরু করে করোনকালে সরকারের ঘোষিত লকডাউন বাস্তবায়নও সাধারণ মানুষকে ঘরে রাখতে দিনরাত এক করে কাজ করেছেন তিনি। মাঠ পর্যায়ে তার কর্মকাণ্ড অতুলনীয়।

ভাই গিরিশচন্দ্র সেন পাঠাগারের সভাপতি শাহীনুর মিয়া জানান, করোনাকালে সম্মুখসারির করোনা যোদ্ধার দায়িত্ব পালন করছেন তিনি। তার কর্মকাণ্ডে সাধারণ মানুষের সঙ্গে প্রশাসনের দূরত্ব অনেকটা কমে গেছে।

নরসিংদীর সচেতন মহল মনে করছেন, মাঠ পর্যায়ে একজন সৎ, দক্ষ, পরিশ্রমী ও পরোপকারি মানুষ এসিল্যান্ড শাহ্ আল মিয়া। তিনি সততা দিয়ে জেলাবাসীর ভালোবাসা জয় করেছেন। শাহ্ আলম চলে গেলেও তার কর্মকাণ্ড থেকে যাবে নরসিংদীবাসীর হৃদয়ে। সাধারণ মানুষের সঙ্গে প্রশাসনের সেতুবন্ধন সৃষ্টি করে জেলা প্রশাসনের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল করেছেন এসিল্যান্ড শাহ্ আলম মিয়া। তিনি নরসিংদীবাসীর মাঝে স্মরণীয় হয়ে থাকবেন।

সহকারী কমিশনার (ভূমি) হিসেবে দায়িত্ব পালনকালে কাজের স্বীকৃতি হিসেবে ২০২০ সালের ২৪ ডিসেম্বর তিনি জেলা পর্যায়ে শ্রেষ্ঠ এসিল্যান্ডের সম্মাননা পান। ২০১৯ সালে সততা, নিষ্ঠা ও কর্মদক্ষতায় অবদানের জন্য জাতীয় শুদ্ধাচার পুরস্কার ও স্বচ্ছ সেবা প্রদানে বিশেষ ভূমিকা রাখায় ২০১৮ সালে জেলার শ্রেষ্ঠ কর্মকর্তার পুরষ্কার অর্জন করেন তিনি।

মো. শাহ্ আলম মিয়া নরসিংদী সদর উপজেলার ৩৫ তম সহকারী কমিশনার (ভূমির) দায়িত্ব পালন করেছেন। এরআগে ২০১৬ সালে সর্বপ্রথম নরসিংদী জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট হিসেবে চাকরি জীবন শুরু করেন। পরবর্তীতে জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও নেজারত ডেপুটি কালেক্টরেট (এনডিসি) হিসেবে দক্ষতার সঙ্গে দায়িত্ব পালন করেন। এরপর ২০১৯ সালে পদোন্নতি পেয়ে নরসিংদী সদর উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) হিসেবে যোগদান করেন। তার গ্রামের বাড়ী রংপুরের মিঠাপুকুর উপজেলার মির্জাপুর গ্রামে। তিনি সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএইচ