পকেটমারদের ভাগ-বাটোয়ারা নিয়ে দ্বন্দ্ব, মারধর-বাড়িতে হামলা!

ঢাকা, শুক্রবার   ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১,   আশ্বিন ১০ ১৪২৮,   ১৫ সফর ১৪৪৩

পকেটমারদের ভাগ-বাটোয়ারা নিয়ে দ্বন্দ্ব, মারধর-বাড়িতে হামলা!

বগুড়া প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ২২:৪৬ ২৫ জুলাই ২০২১  

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

বগুড়ার সদর উপজেলায় জহুরুল নামের এক ব্যক্তিকে মারপিটের পর হাসপাতালে ভর্তি অবস্থায় তার মৃত্যু হয়েছে, এমন খবর ছড়িয়ে পড়ায় এক ব্যবসায়ীর বাড়িসহ দুইজনের বাড়িতে হামলা ও ভাঙচুর করা হয়েছে।

রোববার দুপুরে বগুড়া সদর উপজেলার চেলোপাড়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে নিয়েছে। আহত জহুরুল উত্তর চেলোপাড়া এলাকার বাসিন্দা। জহুরুল এলাকায় চিহ্নিত পকেটমার হিসেবে পরিচিত।

জহুরুলের মৃত্যুর গুজব ছড়িয়ে পড়ার পর তার অনুসারীরা শহরের চুড়িপট্টি মার্কেটের ব্যবসায়ী নেতা বেলাল হোসেন নান্নুর বাড়িতে হামলা চালিয়ে ভাঙচুর করে। এ সময় নান্নুর প্রতিবেশি কালামের বাড়িতেও হামলা চালিয়ে ভাঙচুর করা হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, কয়েকদিন আগে জহুরুলসহ কয়েকজন পকেটমার জড়ো হয়ে নিজেদের মধ্যে ভাগ বাটোয়ারা নিয়ে বেলাল হোসেন নান্নুর বাড়ির পার্শ্বের ফাঁকা জায়গায় দ্বন্দ্বে জড়িয়ে পড়েন। পকেটমারদেরকে নিজের (নান্নু) বাড়ির আশেপাশে এসে বাগবিতণ্ডায় লিপ্ত হতে নিষেধ করেন নান্নু। এ নিয়ে নান্নুকে মারধরও করেন পকেটমাররা।

ওই ঘটনার জেরে রোববার দুপুরে চিহ্নিত পকেটমার জহুরুলকে একা পেয়ে নান্নুর পক্ষের লোকজন মারপিট করেন। মারপিটে আহত জহুরুলকে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

এদিকে এলাকায় গুজব ছড়িয়ে পড়ে হাসপাতালে জহুরুল মারা গেছেন। এতে চেলোপাড়া সান্দার পোট্রির জহুরুলের অনুসারীরা উত্তেজিত হয়ে একই দিন দুপুরে ব্যবসায়ী নান্নুর বাড়িসহ কালাম নামে আরও একজনের বাড়িতে হামলা চালিয়ে ভাঙচুর করে।

কথা হয় নান্নুর স্ত্রী তাবাছ্ছুম ও ছেলে তাছিফের সঙ্গে। তারা জানান, জহুরুল পকেটমার মারা গেছেন এই গুজব ছড়িয়ে সান্দার পোট্টির লোকজন এসে আমাদের বাড়ি ও প্রতিবেশী কালামের বাড়িতে হামলা চালিয়ে ভাঙচুর করেছে। এমনকি বাড়ির ভেতরেও ইট-পাটকেল নিক্ষেপ করেছে। হামলাকারীরা লুটপাটের জন্য এমন ঘটনা ঘটিয়েছেন।

এ বিষয়ে বগুড়া পৌরসভার ৬ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর পরিমল চন্দ্র দাস বলেন, জহুরুল সামান্য আহত হয়েছেন। বর্তমানে তিনি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

তিনি বলেন, গত কয়েকদিন আগে নান্নুর বাড়ির পার্শ্বে একটি ঘটনা ঘটে। এর জের ধরেই তারা মারপিটের পর বাড়িতে হামলা চালায়। কাউকে মারপিট করা বা কারো বাড়িতে হামলা করা ঠিক না। এ ঘটনার নিন্দা জানাই। 

সদর থানার এসআই সোহেল জানান, একজনকে মারপিট ও প্রতিপক্ষের বাড়িতে হামলার খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে যাই। বর্তমানে পরিস্থিতি স্বাভাবিক রয়েছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/আরএম