লকডাউনে জরিমানা না দিয়ে উল্টো পুলিশ পরিদর্শককে লাঞ্ছিত করল যুবক

ঢাকা, শুক্রবার   ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১,   আশ্বিন ৯ ১৪২৮,   ১৫ সফর ১৪৪৩

লকডাউনে জরিমানা না দিয়ে উল্টো পুলিশ পরিদর্শককে লাঞ্ছিত করল যুবক

নীলফামারী প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৪:৫৪ ২৪ জুলাই ২০২১  

আসামি আতিফ হোসেন ও ভুক্তভোগী আতাউর রহমান

আসামি আতিফ হোসেন ও ভুক্তভোগী আতাউর রহমান

‘সবচেয়ে কঠোর’ লকডাউনে সন্ধ্যার পর বাইরে বের হয়ে বেপরোয়া গতিতে গাড়ি চালানোর অপরাধে এক যুবককে জরিমানা করেছে ভ্রাম্যমাণ আদালত। তবে তিনি জরিমানা না দিয়ে ক্ষিপ্ত হয়ে চলে যান। পরে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের নির্দেশে পুলিশ তাকে আটক করে। ওই সময় তিনি পুলিশের এক পরিদর্শককে শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করেন। ওই ঘটনায় পুলিশ গাড়িতে থাকা দুজনের বিরুদ্ধে মামলা করেছে।

শুক্রবার রাতে এ ঘটনা ঘটেছে নীলফামারীর সৈয়দপুর উপজেলায়।

জানা গেছে, চলমান ‘সবচেয়ে কঠোর’ লকডাউনের প্রথমদিন রাত সাড়ে ৮টার দিকে সৈয়দপুর বিমানবন্দর সড়কের সিএসডি মোড়ে বেপরোয়া গতিতে গাড়ি চালাচ্ছিলেন আতিফ আলতাফ হোসেন নামে এক যুবক। বিধিনিষেধ অমান্য করে এভাবে বাইরে বের হওয়ায় পুলিশ তার গতিরোধ করে। সৈয়দপুরের ভারপ্রাপ্ত ইউএনও এবং ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট রমিজ আলম তাকে ১০০০ টাকা জরিমানা করেন। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে জরিমানা পরিশোধ না করেই গাড়ি নিয়ে চলে যান আতিফ। এরপর প্রায় দেড় কিলোমিটার ধাওয়া করে আতিফকে শহরের বঙ্গবন্ধু সড়কের বিসিক শিল্পনগরীর কাছ থেকে আটক করে পুলিশ। ওই সময় গাড়ি থেকে নেমে পুলিশ পরিদর্শক আতাউর রহমানের গায়ে হাত তোলেন আতিফ। তার পোশাক ছিঁড়ে ফেলেন।

ভুক্তভোগী আতাউর রহমান সৈয়দপুর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। ওই ঘটনায় রাতেই সৈয়দপুর থানার এসআই রেজাউল ইসলাম মামলা করেন। মামলায় আতিফ আলতাফ হোসেন ও আতিক হোসেনকে আসামি করা হয়েছে। তারা সৈয়দপুর শহরের বিশিষ্ট ব্যবসায়ী আলতাফ হোসেনের ছেলে।

সৈয়দপুর থানার ওসি আবুল হাসনাত খান বলেন, ভ্রাম্যমাণ আদালত অমান্য করা, দায়িত্বরত পুলিশ কর্মকতার গায়ে হাত তোলা ও লকডাউনে বিধিনিষেধ অমান্য করার মতো একাধিক অপরাধ করার কারণে ওই দুই যুবকের বিরুদ্ধে মামলা করার নির্দেশ দেন ইউএনও রমিজ আলম। এছাড়া তাদের বিরুদ্ধে অর্থদণ্ডের আদেশও বহাল রয়েছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/এআর