রাত পোহালেই বন্ধ লঞ্চ-ফেরি, চলবে না কোনো গাড়ি

ঢাকা, শুক্রবার   ৩০ জুলাই ২০২১,   শ্রাবণ ১৬ ১৪২৮,   ১৯ জ্বিলহজ্জ ১৪৪২

রাত পোহালেই বন্ধ লঞ্চ-ফেরি, চলবে না কোনো গাড়ি

নিজস্ব প্রতিবেদক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ২৩:২৭ ২২ জুলাই ২০২১   আপডেট: ২৩:৩০ ২২ জুলাই ২০২১

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

দেশে বেড়েই চলেছে করোনার সংক্রমণ। সমান তালে বাড়ছে মৃত্যুর সংখ্যাও। তাই করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে বিধিনিষেধ কার্যকর করতে শুক্রবার সকাল থেকে ফেরিতে যাত্রীবাহী সব ধরনের গাড়ি ও যাত্রী পরিবহন বন্ধ থাকবে। একই সঙ্গে বন্ধ থাকবে লঞ্চ ও গণপরিবহন। তবে কঠোর স্বাস্থ্যবিধি মেনে ফেরিতে শুধু জরুরি পণ‍্যবাহী গাড়ি ও অ্যাম্বুলেন্স পারাপার করা হবে।

বৃহস্পতিবার এ তথ্য নিশ্চিত করেন নৌ পরিবহন মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র তথ্য অফিসার মো. জাহাঙ্গীর আলম খান।

তিনি বলেন, ৯ জুলাই এ সংক্রান্ত বিজ্ঞপ্তি জারি করেছে বিআইডব্লিউটিসি। ২৩ জুলাই সকাল ৬টা থেকে ৫ আগস্ট রাত ১২টা পর্যন্ত যাত্রীবাহী নৌযান চলাচল বন্ধ থাকবে।

করোনাভাইরাসের সংক্রমণের বর্তমান পরিস্থিতি বিবেচনায় মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের ১৩ জুলাইয়ের জারি করা প্রজ্ঞাপনের পরিপ্রেক্ষিতে ২৩ জুলাই সকাল ৬টা থেকে ৫ আগস্ট রাত ১২টা পর্যন্ত অভ্যন্তরীণ নৌপথে সব ধরনের যাত্রীবাহী নৌযান (লঞ্চ, স্পিডবোট, ট্রলার ও অন্যান্য) চলাচল বন্ধ থাকবে।

বিআইডব্লিউটিএ’র এ সংক্রান্ত বিজ্ঞপ্তিতে অভ্যন্তরীণ নৌপথে চলাচলকারী যাত্রীবাহী নৌযানের মালিক, মাস্টার, ড্রাইভার, স্টাফ, যাত্রী সাধারণ ও সংশ্লিষ্ট সবাইকে এ নির্দেশনা মেনে চলতে অনুরোধ করা হয়েছে। আদেশ অমান্যকারীদের বিরুদ্ধে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেয়ার কথাও জানিয়েছে তারা।

করোনা সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণের অংশ হিসেবে ২৩টি শর্ত দিয়ে ২৩ জুলাই সকাল ৬টা থেকে ৫ আগস্ট রাত ১২টা পর্যন্ত কঠোর বিধিনিষেধ আরোপ করেছে সরকার। এ বিধিনিষেধে মানুষের চলাচল নিয়ন্ত্রণসহ সব ধরনের দোকানপাট, গণপরিবহন এবং শিল্পকারখানা বন্ধ থাকবে। তবে কোরবানির পশুর চামড়া সংশ্লিষ্ট খাত, খাদ্যপণ্য এবং কোভিড-১৯ প্রতিরোধে পণ্য ও ওষুধ উৎপাদনকারী শিল্প প্রতিষ্ঠান বিধিনিষেধের বাইরে থাকবে।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমআর