নজরদারি এড়াতে মুঠোফোনের ক্যামেরা ঢেকে দিয়েছেন মমতা

ঢাকা, মঙ্গলবার   ২৭ জুলাই ২০২১,   শ্রাবণ ১২ ১৪২৮,   ১৬ জ্বিলহজ্জ ১৪৪২

নজরদারি এড়াতে মুঠোফোনের ক্যামেরা ঢেকে দিয়েছেন মমতা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৪:৪৪ ২২ জুলাই ২০২১  

ছবি: মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

ছবি: মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

ইসরায়েলি স্পাইওয়্যার ‘পেগাসাস’ ইস্যুতে এবার সরব হয়েছেন ভারতের পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। নিজের মুঠোফোন দেখিয়ে বলেছেন, এই নজরদারি এড়াতে ক্যামেরা স্টিকিং প্লাস্টারে ঢেকে দিয়েছেন তিনি।

ইসরায়েলের প্রতিষ্ঠান এনএসও গ্রুপের তৈরি করা সফটওয়্যার ‘পেগাসাস’ ব্যবহার করে ভারতের যাদের ওপর নজরদারি করা হয়েছে, তাদের মধ্যে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নামও রয়েছে। এই ফোন নজরদারির আওতায় ভারতের অন্তত ৩০০ রাজনীতিক, সাংবাদিক, অধিকারকর্মী ও বিজ্ঞানীর নাম রয়েছে।

এ তালিকায় রয়েছে বিজেপির দুই মন্ত্রী প্রহ্লাদ প্যাটেল ও অশ্বিনী বৈষ্ণর নামও। এই মুঠোফোনে আড়ি পাতার ঘটনা তদন্তে সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন ভারতের পার্লামেন্টের বিরোধীদলীয় সাংসদেরা। এরপর মমতা তার ক্ষোভ ঝাড়লেন।

মমতা বলেন, ‘পেগাসাসের নামে আমার–আপনার ফোন টেপিং হচ্ছে। টেপিং হচ্ছে অভিষেকের ফোনও। বাদ যায়নি বিচারপতি, মন্ত্রী, অফিসারদের ফোন টেপিং। ওরা রেকর্ডিং করে। তাই ওরা গণতন্ত্রের পরিবর্তে চালাচ্ছে দেশব্যাপী গোয়েন্দাগিরি।’

মমতা বলেন, ‘সত্যি কথা বলতে কি, এখন গোটা দেশেই গোয়েন্দাগিরি চালাচ্ছে ওরা। তাই তো এখন কাউকে ফোন করতে পারি না। কারণ, ফোন টেপ হয়, রেকর্ডিং হয়। তাই তো আমি ফোনের ক্যামেরা ঢেকে রেখেছি। লাগিয়েছি স্টিকিং প্লাস্টার।’

মমতা আরও বলেন, ‘ওদের বিশ্বাস করবেন না। ওরা সাম্প্রদায়িক। গণতান্ত্রিক অধিকার শেষ করে দিচ্ছে। ভারতের যুক্তরাষ্ট্রীয় কাঠামো ভেঙে দিচ্ছে। বিচারব্যবস্থাকে শেষ করে দিচ্ছে।’ এ সময় মমতা তাঁর ভাষণে নতুন একটি স্লোগান যোগ করেন, ‘পেগোসাস-ফেরোসাস, নরেন্দ্র মোদির নাভিশ্বাস।’

ডেইলি বাংলাদেশ/মাহাদী