বিয়ের ছয় মাস পর কিশোরীকে হত্যা, ঘরে লাশ রেখেই পালালেন স্বামী

ঢাকা, মঙ্গলবার   ২৭ জুলাই ২০২১,   শ্রাবণ ১২ ১৪২৮,   ১৬ জ্বিলহজ্জ ১৪৪২

বিয়ের ছয় মাস পর কিশোরীকে হত্যা, ঘরে লাশ রেখেই পালালেন স্বামী

যশোর প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ০০:০১ ২০ জুলাই ২০২১   আপডেট: ০০:০৮ ২০ জুলাই ২০২১

ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

যশোর সদর উপজেলার শ্যামকুড় গ্রামে শ্বশুরবাড়ি থেকে সানজিদা আক্তার লিমা নামে ১৪ বছরের এক কিশোরীর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

এ ঘটনায় সোমবার স্বামীসহ শ্বশুরবাড়ির লোকজনের বিরুদ্ধে মামলা করেছেন গৃহবধূর বাবা বাবুল হোসেন। তবে ঘটনার পর থেকেই পলাতক রয়েছেন লিমার স্বামী ফারুক হোসেনসহ তার পরিবারের লোকজন।

স্থানীয়রা জানায়, ছয় মাস আগে প্রতিবেশী চা বিক্রেতা মনছুর আলীর ছেলে ফারুক হোসেনের সঙ্গে লিমার বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকেই তাকে নানাভাবে নির্যাতন করতেন স্বামী ও শাশুড়ি। রোববার রাতে পারিবারিক কলহের জেরে লিমাকে শ্বাসরোধে হত্যা করেন ফারুক। এরপর লাশ ঘরে রেখে পালিয়ে যান তারা। পরে লাশ উদ্ধার করে পুলিশ।

মণিরামপুর থানার ওসি (তদন্ত) শিকদার মতিয়ার রহমান বলেন, এ ঘটনায় স্বামী ফারুক হোসেন, শ্বশুর মুনছুর আলী, চাচা শ্বশুর আনছার আলী ও শাশুড়ি রোজিনার বিরুদ্ধে মামলা করেন নিহত লিমার বাবা বাবুল। অভিযুক্তদের গ্রেফতারে অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমআর