মহাসড়কে স্বস্তি: ২ ঘণ্টায় ঢাকা থেকে কুমিল্লা

ঢাকা, শুক্রবার   ৩০ জুলাই ২০২১,   শ্রাবণ ১৬ ১৪২৮,   ১৯ জ্বিলহজ্জ ১৪৪২

মহাসড়কে স্বস্তি: ২ ঘণ্টায় ঢাকা থেকে কুমিল্লা

কুমিল্লা প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৮:৩৯ ১৯ জুলাই ২০২১  

যানজট নেই ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের কুমিল্লা অংশে

যানজট নেই ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের কুমিল্লা অংশে

একদিন পরই ঈদ। করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে ১ জুলাই থেকে কঠোর লকডাউন চললেও পবিত্র ঈদুল আজহা উপলক্ষে নারীর টানে বাড়ি ফেরা মানুষের সুবিধার্থে এবং কোরবানির পশুর হাটের জন্য আটদিন বিধি-নিষেধ শিথিল করা হয়েছে। এ সুযোগে রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে প্রিয়জনের কাছে ফিরছে মানুষ। ফলে সড়ক-মহাসড়কে সৃষ্টি হচ্ছে যানজট।

ঈদের একদিন আগে দেশের বিভিন্ন মহাসড়কে গণপরিবহনের তীব্র চাপ থাকলেও ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক রয়েছে পুরোপুরি স্বস্তিতে। এ মহাসড়কের কুমিল­া অংশের ১০৪ কিলোমিটার এলাকা যানজটমুক্ত থাকায় যাত্রীদের চলাচলে কোনো ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে না। পাশাপাশি পণ্য ও পশুবাহী গাড়িও চলাচল করছে স্বস্তিতে।

সোমবার সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত মহাসড়কের বিভিন্ন স্থান ঘুরে এমন দৃশ্য দেখা গেছে।

ঈদের একদিন আগে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের কুমিল্লা অংশ ছিল ফাঁকা। স্বস্তিতে বাড়ি ফিরছেন কর্মজীবী মানুষ

কুমিল­া থেকে ঢাকাগামী সিরাজুল ইসলাম বলেন, সকালে বাসে করে কুমিল­া থেকে ঢাকায় এসেছি। কোথাও যানজট নেই। শুধু নারায়ণগঞ্জের মদনপুরে কিছুটা জট ছিল।

ঢাকা-কুমিল­া রুটের রয়েল পরিবহনের চালক দেলোয়ার হোসেন ও এশিয়া পরিবহনের চালক আবুল কাসেম বলেন, মাত্র দুই ঘণ্টা থেকে সোয়া দুই ঘণ্টার মধ্যে ঢাকা-কুমিল­া আসা-যাওয়া করা যাচ্ছে। বিশেষ করে মহাসড়কের কুমিল­া অংশে কোন যানজট নেই। যাত্রীরা স্বস্তিতে বাড়ি ফিরছেন।

এদিকে, ঈদে বাড়ি ফেরা মানুষের নিরাপদ যাত্রা ও মহাসড়ককে যানজটমুক্ত রাখতে হাইওয়ে পুলিশের পক্ষ থেকে নেয়া হয়েছে প্রস্তুতি। হাইওয়ে পুলিশের ১০টি পেট্রোল টিম, দুটি কন্ট্রোল রুম দিন-রাত কাজ করছে এবং পাঁচটি রেকার ও দুটি অ্যাম্বুলেন্স প্রস্তুত রাখা হয়েছে।

হাইওয়ে পুলিশ কুমিল­া অঞ্চলের পুলিশ সুপার মুহাম্মদ রহমত উল­াহ এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, আমরা মহাসড়ককে যানজট মুক্ত রাখতে বিভিন্ন প্রস্তুতি গ্রহণ করেছি। বিশেষ করে দাউদকান্দির গৌরপুর, চান্দিনা, ইলিয়টগঞ্জ, নিমসার বাজার, সদর দক্ষিণের সুয়াগাজী ও চৌদ্দগ্রাম উপজেলা সদরে যাতে যানবাহনের জট না লাগে সে জন্য বিশেষ ব্যবস্থা রাখা হয়েছে।

পুলিশ সপার বলেন, ঈদ উপলক্ষ্যে সাধারণ মানুষকে নিরাপদে বাড়ি পৌঁছাতে হাইওয়ে পুলিশ দিন-রাত নিরলস কাজ করে যাচ্ছে। আমরা চেষ্টা করছি মহাসড়কের যানজট তো দূরের কথা, কোথাও যেন জটলাও না বাধে।

ডেইলি বাংলাদেশ/এআর