মামলা না নিয়ে থানা থেকে বের করে দিলেন ওসি!

ঢাকা, মঙ্গলবার   ২৭ জুলাই ২০২১,   শ্রাবণ ১২ ১৪২৮,   ১৬ জ্বিলহজ্জ ১৪৪২

মামলা না নিয়ে থানা থেকে বের করে দিলেন ওসি!

রাজশাহী প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৮:০৮ ১৯ জুলাই ২০২১  

সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য দিচ্ছে ভুক্তভোগীর পরিবার

সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য দিচ্ছে ভুক্তভোগীর পরিবার

রাজশাহী নগরীতে মামলা না নিয়ে অশোভন আচরণ করে বের করে দেয়ার অভিযোগে রাজপাড়া থানার ওসির বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলন করেছেন এক ভুক্তভোগী পরিবার। 

রোববার সন্ধ্যায় রাজশাহী নগরীর দোশর মন্ডলের মোড়ে রাজশাহী মডেল প্রেস ক্লাবের সম্মেলন কক্ষে রাজপাড়া থানার ওসি মাজহারুল ইসলামের বিরুদ্ধে এরকমই অভিযোগ এনে সংবাদ সম্মেলন করেছেন নগরীর রাজপাড়া থানার নিমতলা মোড় এলাকার আব্দুল জব্বারের স্ত্রী নুরজাহান বেগম ও তার ছেলে মোহাম্মদ রতন।

সংবাদ সম্মেলনে নুরজাহান বেগম ও তার ছেলে রতন সাংবাদিকদের বলেন, গত ১৬ জুন রাত ৯টার সময় আমার ছেলে (ভিকটিম) ইসমাইল হোসেন ছোটন ও তার দুই বন্ধু নিমতলা মোড়ে নাঈম এর দোকানে ৩টা বার্গারের অর্ডার দেয়। কিন্ত দোকানি নাঈম বার্গার তৈরি করলেও পরে আসা অন্য কাস্টমারকে বার্গার দিয়ে দেন। এতে আমার ছেলে ক্ষিপ্ত হয়ে দোকানিকে বকাবকি দিয়ে বন্ধুদের বিদায় দিয়ে বাড়িতে ফিরে আসে। কিছুক্ষণ পরেই দোকানিসহ একদল সন্ত্রাসী দেশীয় অস্ত্রসহ আমার বাড়িতে এসে আমার ছেলেকেসহ বাড়িতে থাকা সবাইকে বেধড়ক মারপিট করে জখম করে। এ সময় আমাদের চিৎকারে প্রতিবেশীরা এগিয়ে আসলে তারা পরবর্তীতে এরকম হলে গলাকেটে হত্যার হুমকি দিয়ে চলে যায়।

এ ঘটনার পর আমরা অতিরিক্ত আহতদের হাসপাতালে ভর্তি করে রাজপাড়া থানায় মামলা দিতে গেলে আমাদের মামলা না নিয়ে মামলার কাগজ ছুঁড়ে ফেলে দেন ওসি সাহেব। এরপর তিনি কোনো মামলা নেবেন না মর্মে আমাদের সঙ্গে অশোভন আচরণ করে থানা থেকে বের করে দেন। পরে জানলাম সন্ত্রাসীদের পক্ষ থেকে দেয়া মামলা তারা নিয়েছেন অথচ আমাদের মামলা নিলেন না।

এর একদিন পর সকালে আবারো আমরা আমাদের প্রতিবেশী একজন অনলাইন পোর্টালের সাংবাদিককে সঙ্গে নিয়ে মামলা দিতে গেলে তাকেও ওসি গালাগালি আর মারতে উদ্ধত হয়।

এ বিষয়ে রাজপাড়া থানার ওসির কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, এজাহারভুক্ত কোনো ব্যক্তির মামলা নেয়া হয় না, অশোভন আচরণের বিষয়টি অস্বীকার করে তিনি বলেন, তাদের সঙ্গে তো নয়ই গণমাধ্যমকর্মীর সঙ্গেও কোনো খারাপ আচরণ করিনি আমি।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএইচ