‘সাদা মনের মানুষ’ কবি এনায়েত হোসেন মারা গেছেন

ঢাকা, বুধবার   ২৭ অক্টোবর ২০২১,   কার্তিক ১২ ১৪২৮,   ১৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

‘সাদা মনের মানুষ’ কবি এনায়েত হোসেন মারা গেছেন

ফরিদপুর প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৯:২৪ ১০ জুলাই ২০২১  

‘সাদা মনের মানুষ’ হিসেবে পরিচিত ছড়াকার ও কবি এনায়েত হোসেন

‘সাদা মনের মানুষ’ হিসেবে পরিচিত ছড়াকার ও কবি এনায়েত হোসেন

ফরিদপুরে ‘সাদা মনের মানুষ’ হিসেবে পরিচিত কবি ও ছড়াকার এনায়েত হোসেন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন (ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। শনিবার ভোর ৪টা ৩০মিনিটে শহরের রেজওয়ান মোল্লা জেনারেল হাসপাতালে ৭৬ বছর বয়সে তার মৃত্যু হয়।

ছড়াকার এনায়েত হোসেন দীর্ঘদিন বার্ধক্যজনিত অসুস্থতায় ভুগছিলেন। সম্প্রতি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হলে প্রথমে ফরিদপুরের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল কলেজের করোনা ডেকেটেড হাসপাতালে ভর্তি করা করা হয়। চিকিৎসার পর অবস্থার উন্নতি হলে তাকে হাসপাতাল থেকে বাড়িতে নেয়া হয়। বুধবার রাতে তিনি আবারো অসুস্থ হলে রেজোয়ান মোল্যা জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। শনিবার ভোরে সেখানেই মৃত্যু হয় তার।

এনায়েত হোসেন ১৯৪৫ সালের ১ মার্চ ফরিদপুর সদর উপজেলার নর্থ চ্যানেল গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। কর্মজীবনে সরকারি রাজেন্দ্র কলেযের পদার্থ বিজ্ঞান বিভাগের ল্যাব সহকারী ছিলেন। ২০০৫ সালে তিনি অবসরে যান।

কৈশোর জীবন থেকেই ছড়া লিখতেন এনায়েত হোসেন। তার ছড়ায় আছে যাদুকরী ছন্দ, মাতৃভূমির প্রতি ভালোবাসা, দরিদ্রের প্রতি ধনীর শোষণ, বঞ্চনা, অন্যায় ও অসংগতি। ১৯৭৯ সালে তার প্রথম বই পালাবদলের ছড়া প্রকাশিত হয়। এরপরই এনায়েত হোসেনের নাম হয়ে যায় পালা বদলের কবি। তার অন্যান্য গ্রন্থসমূহ হলো- কচি কলিদের ছড়া, চোখের জলে আগুন জ্বলে, প্রতিবাদী ছড়া ও ভাব সংগীত, ছোটদের জসীম উদদীন, শ্রেষ্ঠ ছড়া, সুখের পাখি এবং রাজাপুর।

সাদামাটা ব্যক্তিত্ব ও কবিতার নান্দনিকতা এনায়েত হোসেনকে এনে দিয়েছে সাহিত্যপ্রেমী ও সাধারণের ভূয়সী প্রশংসা। নানা সম্মাননা ও পদকে ভূষিত হয়েছেন তিনি। ২০০৮ সালে বাংলাদেশ সরকার কর্তৃক ‘সাদা মনের মানুষ’ সম্মাননায় ভূষিত হন এ কবি। নকশী কাঁথা সাহিত্য
পুরস্কার পান ২০০৯ সালে। ২০১৩ সালে পান সাংবাদিক গৌতম স্মৃতি পুরস্কার। কবি জসীম উদদীন স্বর্ণপদক পান ২০১৯ সালে।

ছড়াকার ও কবি এনায়েত হোসেনের মৃত্যুতে দেশ বিদেশের সাহিত্যপ্রেমী, শিক্ষাবিদ, বিশিষ্ট গুণীজন, বিভিন্ন সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠন ও ব্যক্তিবর্গ গভীর শোক প্রকাশ করেছেন।

ডেইলি বাংলাদেশ/এআর