নিজেকে ‘এইচ টি ইমামের ছেলে’ পরিচয় দিতেন তিনি

ঢাকা, শুক্রবার   ০৬ আগস্ট ২০২১,   শ্রাবণ ২২ ১৪২৮,   ২৬ জ্বিলহজ্জ ১৪৪২

নিজেকে ‘এইচ টি ইমামের ছেলে’ পরিচয় দিতেন তিনি

ময়মনসিংহ প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৯:৪২ ২৩ জুন ২০২১  

গ্রফতার প্রতারক জহির উদ্দিন বাবুল

গ্রফতার প্রতারক জহির উদ্দিন বাবুল

প্রয়াত রাজনীতিবিদ এইচ টি ইমামের ছেলে এবং এমপি পরিচয় দিয়ে চাকরির প্রলোভন দেখিয়ে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগে দুই প্রতারককে গ্রেফতার করেছে ডিবি পুলিশ।

গ্রেফতারকৃতরা হলেন- জহির উদ্দিন বাবুল ও তার সহযোগী গুলশান আরা খানম লাভলী। বুধবার সকালে অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেফতার করা হয়।

ডিবি পুলিশ জানায়, তিন বছর ধরে রাজধানীর ফকিরাপুলের হোটেল শেল্টারে অবস্থান করে প্রতারণামূলক কর্মকাণ্ড চালাচ্ছিলেন জহির উদ্দিন। প্রথমে চাকরির প্রলোভন দেখিয়ে টাকা ও খালি চেক নিতেন। এরপর চেকে টাকার অংক বসিয়ে নিজেকে সিরাজগঞ্জ-৪ আসনের এমপি পরিচয় দিয়ে পুলিশের কাছে তদবির করতেন তিনি।

নজরুল ইসলাম নামে এক ভুক্তভোগী জানান, চলতি বছরের জানুয়ারিতে তার ভাতিজা ও ভাতিজিকে সেনাবাহিনীতে চাকরি দেওয়ার কথা বলে ১৭ লাখ টাকায় চুক্তি করেন প্রতারক জহির। এরপর ছয় লাখ টাকা এবং পাঁচটি চেক নেন। কিন্তু চাকরি না হওয়ায় টাকা ও চেক ফেরত না দিয়ে উল্টো খালি চেকে ২০ লাখ টাকার অংক বসিয়ে উকিল নোটিশ পাঠান। এ বিষয়ে পুলিশের কাছে অভিযোগ করেন ভুক্তভোগী। পরে অভিযোগের তদন্ত করতে গিয়ে চক্রটিকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

ময়মনসিংহ পুলিশ সুপার মোহা. আহমার উজ্জামান বলেন, প্রতারক বাবুল আমাদের কাছে এমপি পরিচয়ে কল দিয়ে তদবির করেন। এক পর্যায়ে সন্দেহ হওয়ায় আমরা অনুসন্ধান করি। অনুসন্ধানে তার ভুয়া পরিচয়ের বিষয়টি প্রমাণিত হয়। পরে বাবুল ও তার সহযোগী লাভলীকে গ্রেফতার করি।

তিনি আরো বলেন, জিজ্ঞাসাবাদে প্রতারণা ও আর্থিক ফায়দা হাসিলের বিষয়টি স্বীকার করেন গ্রেফতারকৃতরা। তারা ময়মনসিংহের ছয়জনের কাছ থেকে সাড়ে ৯ লাখ টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন। এছাড়া তাদের কাছ থেকে ৪৪ লাখ ৩০ হাজার টাকার আটটি চেক উদ্ধার করা হয়েছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/এআর