ছন্নছাড়া কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা বিএনপি

ঢাকা, শুক্রবার   ০৬ আগস্ট ২০২১,   শ্রাবণ ২২ ১৪২৮,   ২৬ জ্বিলহজ্জ ১৪৪২

ছন্নছাড়া কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা বিএনপি

কুমিল্লা প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৫:০৯ ২০ জুন ২০২১   আপডেট: ২৩:০৬ ২০ জুন ২০২১

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

কোন্দল আর বিভক্তির কারণে ছন্নছাড়া দলে পরিণত হয়েছে কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা বিএনপি। জেলার শীর্ষ নেতারা মাঠে না থাকায় এমনটি হয়েছে বলে মনে করছেন তৃণমূলের কর্মী-সমর্থকরা।

তাদের অভিযোগ, জেলার দুই শীর্ষ নেতার মধ্যে হাজি আমিন উর রশীদ ইয়াছিনকে এলাকায় পাওয়া যায় না। আর কুমিল্লা সিটি কর্পোরেশনের (কুসিক) মেয়র মনিরুল হক সাককু রয়েছেন নিজের স্বার্থ হাসিল নিয়ে। এ দুই নেতার কারণেই জেলা বিএনপি এখন স্থবির হয়ে পড়েছে।

এক সময় কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা বিএনপি দুই ভাগে বিভক্ত ছিল। এক গ্রুপের নেতৃত্বে ছিলেন প্রয়াত আকবর হোসেন ও সাবেক এমপি বেগম রাবেয়া চৌধুরী। দুই গ্রুপের মধ্যে একাধিকবার সংঘর্ষও হয়েছিল। আকবর হোসেন মারা যাওয়ার পর কিছুদিন গ্রুপিং বন্ধ থাকলেও ফের গ্রুপিং সৃষ্টি হয়। যে গ্রুপিং এখনো রয়েছে।

বর্তমানে এক গ্রুপের নেতৃত্বে রয়েছেন জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক হাজি আমিন উর রশীদ ইয়াছিন এবং আরেক গ্রুপের নেতৃত্ব দেন কুসিক মেয়র মনিরুল হক সাককু।

২০০৯ সালের ২৭ নভেম্বর কুমিল্লা শহরের লাকসাম রোডের তৎকালীন রজনীগন্ধা কমিউনিটি সেন্টারে দক্ষিণ জেলা বিএনপির সর্বশেষ সম্মেলন হয়। সেই সম্মেলনে তিন সদস্যের কমিটি ঘোষণা করা হয়। কমিটিতে কেন্দ্রীয় বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান বেগম রাবেয়া চৌধুরীকে সভাপতি, হাজি ইয়াছিনকে সাধারণ সম্পাদক ও মোস্তাক মিয়াকে সাংগঠনিক সম্পাদক করা হয়। মেয়র সাককু সেই সম্মেলনে উপস্থিত থাকলেও কমিটির নাম ঘোষণার সঙ্গে সঙ্গে বাইরে থাকা তার গ্রুপের লোকজন গোলাগুলি ও ককটেল বিস্ফোরণ শুরু করেন। পাল্টা আক্রমণ শুরু করেন হাজি ইয়াছিনের লোকজনও। পরে মেয়র সাককুকে যুগ্ম সম্পাদক করা হয়।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমআর/এইচএন/এসআর