যৌতুকের জন্য স্ত্রীকে হত্যার অভিযোগ, স্বামী পলাতক

ঢাকা, বৃহস্পতিবার   ২৯ জুলাই ২০২১,   শ্রাবণ ১৪ ১৪২৮,   ১৮ জ্বিলহজ্জ ১৪৪২

যৌতুকের জন্য স্ত্রীকে হত্যার অভিযোগ, স্বামী পলাতক

নোয়াখালী প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১০:০০ ১৯ জুন ২০২১  

ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

নোয়াখালীর বেগমগঞ্জে যৌতুকের জন্য এক গৃহবধূকে হত্যার অভিযোগ উঠেছে অটোচালক স্বামীর বিরুদ্ধে। ঘটনার পর থেকে নিহতের স্বামী পলাতক আছেন।

নিহত বিবি কুলসুম মুন্নি উপজেলার ১৬ নং কাদিরপুর ইউপির ৪নম্বর ওয়ার্ডের ইয়ারপুর গ্রামের আব্দুল মজিদ মিয়ার বাড়ির মো.ইউসুফের মেয়ে এবং বাকের হোসেনের স্ত্রী।

শুক্রবার রাতে পুলিশ উপজেলার কাদিরপুর ইউপির ৪ নম্বর ওয়ার্ডের ইয়াপুর গ্রামের আমিন উল্যার ভাড়া বাসা থেকে নিহত গৃহবধূর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করে। পরে সুরতহাল শেষে মরদেহ থানায় নিয়ে যায় পুলিশ। এর আগে একই দিন বিকেল ৫টার দিকে ওই গৃহবধূ ভাড়া বাসার আড়ার সঙ্গে ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেন।

কাদিরপুর ইউপির ৪নম্বর ওয়ার্ডের মেম্বার বীর মুক্তিযোদ্ধা মজিবুল হক জানান, গত ৩ বছর আগে একই উপজেলার হাজীপুর ইউপির কবির হোসেনের ছেলে অটোচালক বাকের হোসেনের সঙ্গে প্রেম করে বিয়ে হয় মুন্নির। দাম্পত্য জীবনে মুন্নি দুই সন্তানের জননী ছিল।

নিহতের মা আয়েশা আক্তার অভিযোগ করেন, গত কয়েক মাস ধরে নিহতের স্বামী বাকের শ্বশুর বাড়ি থেকে তাকে নগদ পঞ্চাশ হাজার টাকা এনে দেওয়ার জন্য স্ত্রীকে শারীরিক ও মানসিকভাবে নির্যাতন চালায়। 

দুই দিন আগেও নিহত মুন্নি ফোনে তার পরিবারকে জানায়, যে তার স্বামীর বাড়ির মাপ-ঝোপ চলছে। এজন্য তার স্বামী তাকে শ্বশুরবাড়ি থেকে পঞ্চাশ হাজার টাকা এনে দেওয়ার জন্য চাপ সৃষ্টি করছে। এ সময় সে তার পরিবারকে আরো জানায় টাকা না দিলে সে বাঁচতে পারবে না। এর দুই দিন পরই পুলিশ মুন্নির ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করে। 

মুন্নির মা অভিযোগ করেন, নিহতের স্বামী তাকে মেরে মরদেহ ঘরের আঁড়ার সঙ্গে ঝুলিয়ে রেখেছে।

বেগমগঞ্জ থানার ওসি মুহাম্মদ কামরুজ্জামান সিকদার জানান, প্রাথমিক ভাবে ধারণা করা হচ্ছে, অভাব অনটনে পারিবারিক কলহে ওই গৃহবধূ আত্মহত্যা করেছে। খবর পেয়ে পুলিশ মরদেহ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। তবে ময়না তদন্তের রিপোর্ট হাতে পেলে এ বিষয়ে বিস্তারিত জানা যাবে। লিখিত অভিযোগ পেলে পরবর্তীতে এ ঘটনায় আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএস