টয়লেটের পানি দিয়েই হাত পরিষ্কার করেন প্রজেক্ট হিলসার বাবুর্চিরা

ঢাকা, সোমবার   ০২ আগস্ট ২০২১,   শ্রাবণ ১৮ ১৪২৮,   ২২ জ্বিলহজ্জ ১৪৪২

টয়লেটের পর সাবান ছাড়া শুধু পানি দিয়েই হাত পরিষ্কার করেন প্রজেক্ট হিলসার বাবুর্চিরা

নিজস্ব প্রতিবেদক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৭:৪৬ ১৭ জুন ২০২১   আপডেট: ১৯:১৮ ১৭ জুন ২০২১

ছবি: ফাহাদ আহমেদ সিকদার

ছবি: ফাহাদ আহমেদ সিকদার

মুন্সিগঞ্জের শিমুলিয়াঘাটের অদূরে ইলিশ মাছের আদলে নির্মিত ‘প্রজেক্ট হিলসা’ রেস্তোরাঁ। স্থাপনার নকশার কারণে অল্পদিনেই রেস্তোরাঁটি যেমন আলোচনায় চলে আসে ঠিক তেমনি খাবারের দামের কারণেও সমালোচনা কম হয়নি এটি নিয়ে। 

খাবারের মানের চেয়ে দাম বেশি রাখা সঙ্গে সার্ভিস চার্জ নিয়ে ক্রেতাদের মাঝে রয়েছে অসন্তোষ। এবার রেস্তারাঁটিতে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতরের অভিযানেও উঠে আসল রেস্তোরাঁর ভিতরে অনিয়ম এবং অব্যবস্থাপনার চিত্র।

বুধবার (১৬ জুন) দুপুরে প্রজেক্ট হিলসায় অভিযান পরিচালনা করে মুন্সিগঞ্জ ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতর। যেখানে রেস্তোরাঁটির বাবুর্চি ও কর্মচারীদের টয়লেটের পর সাবান ব্যবহার না করার প্রমাণ মিলেছে বলে ভোক্তা অধিকার সূত্র জানিয়েছে।

অভিযানের বিষয়ে জেলা ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতরের সহকারী পরিচালক আসিফ আল আজাদ বলেন, অভিযানে রেস্তোরাঁটিতে অতিথিদের টয়লেটে সাবানের ব্যবস্থা থাকলেও বাবুর্চি ও স্টাফদের টয়লেটে কোনো সাবান পাওয়া যায়নি। টয়লেটের পর বাবুর্চিরা সাবান ব্যবহার করছিলেন না। শুধু পানি দিয়েই হাত পরিষ্কার করছিলেন। কিচেন পরিষ্কার থাকলেও ফ্রিজে কাঁচামাছ-মাংসের সঙ্গে রান্না করা খাবারও মজুত রাখা হয়েছিল। যা ঠিক নয়।

এখানেই শেষ নয়; আসিফ আল আজাদ আরো বলেন, বিএসটিআইয়ের অনুমোদনহীন বিপুল পরিমাণের সস ও নুডলস পাওয়া গেছে। এসব পণ্যের ক্ষেত্রে অবশ্যই বিএসটিআইয়ের অনুমোদন লাগবে। এক-দেড় হাজার মানুষের জন্য রান্না করার মতো খাবার মজুত ছিল। অর্থাৎ, এসব খাবারের মধ্যে বিএসটিআইয়ের অনুমোদনহীন সস, নুডলস ছিল।

ডেইলি বাংলাদেশ/টিএএস