পাটক্ষেতে কিশোরীকে ধর্ষণ করল প্রেমিকসহ তিনজন

ঢাকা, শুক্রবার   ০৬ আগস্ট ২০২১,   শ্রাবণ ২২ ১৪২৮,   ২৬ জ্বিলহজ্জ ১৪৪২

পাটক্ষেতে কিশোরীকে ধর্ষণ করল প্রেমিকসহ তিনজন

নড়াইল প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ২০:৩৯ ১৫ জুন ২০২১  

গণধর্ষণ ও ভিডিও ধারণের মামলায় গ্রেফতারকৃত তিনজন

গণধর্ষণ ও ভিডিও ধারণের মামলায় গ্রেফতারকৃত তিনজন

নড়াইলের লোহাগড়ায় বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে এক কিশোরীকে পাটক্ষেতে নিয়ে ধর্ষণ ও ভিডিও ধারণ করেছে প্রেমিক ও তার দুই বন্ধু। এ ঘটনায় তিনজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

গ্রেফতারকৃতরা হলেন- ধর্ষণের শিকার কিশোরীর প্রেমিক অন্তর শেখ, তার বন্ধু লিকু ফকির ও অটোচালক তুষার।

শনিবার (৫ জুন) ওই উপজেলার ভদ্রডাঙ্গা বাতাশি গ্রামের জোড়া ব্রীজ এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

জানা গেছে, একই উপজেলার কামারগ্রামের ওই কিশোরীর সঙ্গে পার্শ্ববর্তী কাশিপুরের আমিনুর শেখের ছেলে অন্তর শেখের মোবাইলে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। এরই জেরে ৫ জুন ওই কিশোরীকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে যায় অন্তর শেখ। পরে তাকে অটোরিকশায় তুলে লাহুড়িয়া-কল্যাণপুর এলাকার দিকে নিয়ে যায়। পথ থেকে দুই বন্ধু লিকু ফকির ও জামিরুল শেখকেও তুলে নেয় অন্তর। রাত ৯টার দিকে ভদ্রডাঙ্গা বাতাশি গ্রামের জোড়া ব্রীজ এলাকায় ওই কিশোরীকে অটোরিকশা থেকে নামিয়ে একটি পাটক্ষেতে নিয়ে যায় প্রেমিক অন্তর শেখ, লিকু ফকির ও জামিরুল শেখ। সেখানে তার মুখ বেধে তিনজন মিলে ধর্ষণ ও স্মার্টফোনে ভিডিও ধারণ করে রাখে। পরে ওই ঘটনা কাউকে জানালে ভিডিও ভাইরাল করে দেয়ার হুমকি দেয়।

আরো জানা গেছে, ওই রাতে ধর্ষণের কিশোরীকে একই উপজেলার সরশুনা গ্রামে অন্তরের ফুফাতো ভাই আজিজুল মুন্সীর বাড়িতে রেখে যায় তারা। খবর পেয়ে গভীর রাতে ওই কিশোরীর পরিবারের লোকজন এসে উদ্ধার করে। পরে ধর্ষণের কথা পরিবারকে জানায় ভুক্তভোগী।

এদিকে, ঘটনার পর নড়াইল জেলা পরিষদের সদস্য সরশুনা গ্রামের মিশাম শেখ ও কামারগ্রামের আশরাফুল শেখ ধর্ষণের বিষয়টি পুলিশকে না জানিয়ে ৬০ হাজার টাকায় মীমাংসা করতে চাপ সৃষ্টি করে। কিন্তু ঘটনাটি এলাকায় জানাজানি হলে মঙ্গলবার দুপুরে তিন ধর্ষক, দুই সালিশকারী ও অটোরিকশা চালকের বিরুদ্ধে মামলা করেন ধর্ষণের শিকার কিশোরীর বাবা। বিকেলে ধর্ষক অন্তর শেখ, লিকু ফকির ও অটোচালক তুষারকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

লোহাগড়া থানার ওসি শেখ আবু হেনা মিলন বলেন, তিন আসামিকে গ্রেফতার করে আদালতে পাঠানো হয়েছে। ধর্ষণের শিকার কিশোরীকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য নড়াইল সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। বাকি আসামিদের গ্রেফতারে অভিযান চলছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/এআর