৩১ বছরের চাকরি: ২৫ বছরই বেতন পাননি মফিজুল

ঢাকা, বুধবার   ০৪ আগস্ট ২০২১,   শ্রাবণ ২০ ১৪২৮,   ২৪ জ্বিলহজ্জ ১৪৪২

৩১ বছরের চাকরি: ২৫ বছরই বেতন পাননি মফিজুল

কুমিল্লা প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ২১:৪০ ৯ জুন ২০২১  

কুমিল্লা জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের চতুর্থ শ্রেণির কর্মচারী মফিজুল ইসলাম

কুমিল্লা জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের চতুর্থ শ্রেণির কর্মচারী মফিজুল ইসলাম

৩১ বছর ধরে নিষ্ঠার সঙ্গে চাকরি করছেন কুমিল্লা জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের চতুর্থ শ্রেণির কর্মচারী মফিজুল ইসলাম। তবে বেতন পাচ্ছেন না প্রায় ২৫ বছর ধরে। স্ত্রী ও চার সন্তান নিয়ে মানবেতর জীবনযাপন করছেন। প্রায় দুই যুগ বিভিন্ন দফতরে ঘুরেও কোনো সমাধান খুঁজে পাননি।

মফিজুল ইসলাম জানান, তার পৈতৃক বাড়ি কুমিল্লা সদর দক্ষিণ উপজেলার চৌয়ারা এলাকায়। ছোটবেলায় বাবার সঙ্গে রাজশাহী চলে যান। সেখানে ১৯৯০ সালে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে চতুর্থ শ্রেণির কর্মচারী পদে চাকরি পান তিনি। চার বছর ১১ মাস চাকরি করার পর ১৯৯৪ সালের শেষদিকে কুমিল্লায় বদলি হন। সেখানে চার মাস বেতন পান মফিজুল ইসলাম। ১৯৯৫ সাল থেকে তার বেতন বন্ধ। রাজশাহী থেকে তার সার্ভিস বুক পাঠানো হয়নি বলে বেতন দেয়া হচ্ছে না।

তিনি আরো জানান, কয়েকবার রাজশাহীতে যোগাযোগ করেছেন তিনি। প্রতিবাদ সার্ভিস বুক পাঠিয়ে দেয়া হবে বলে আশ্বাস দিলেও এখন পর্যন্ত তা কুমিল্লায় পৌঁছায়নি। কুমিল্লার সাবেক জেলা প্রশাসক মো. আবুল ফজল মীর নিজেও চেষ্টা করেছিলেন মফিজুল ইসলামের এ সমস্যার সমাধান করতে। কিন্তু কোনো কাজ হয়নি।

মফিজুল জানান, বেতন না হওয়ায় অফিসের কাজের ফাঁকে বাইরে টুকটাক কাজ করে পরিবারের খরচ চালাচ্ছেন। এতে খেয়ে-না খেয়ে দিন কাটাতে হচ্ছে তাদের।

কুমিল্লা জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের তৃতীয় শ্রেণির কর্মচারীদের সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক আরিফুল ইসলাম জানান, মফিজুল ইসলাম অনেক বছর ধরে বেতন পাচ্ছেন না। অসংখ্যবার চেষ্টা করেও এ সমস্যার সমাধান করা যায়নি।

কুমিল্লার বর্তমান জেলা প্রশাসক মো. কামরুল হাসান জানান, মফিজুল ইসলামের সমস্যার কথা শুনেছেন। শিগগিরই এ সমস্যার সমাধানে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

ডেইলি বাংলাদেশ/এআর