চোরকে ধরতে খুঁজছিলো পুলিশ, না বুঝে সেখানে গিয়ে হাজির চোর

ঢাকা, বুধবার   ২৩ জুন ২০২১,   আষাঢ় ১০ ১৪২৮,   ১১ জ্বিলকদ ১৪৪২

চোরকে ধরতে খুঁজছিলো পুলিশ, না বুঝে সেখানে গিয়ে হাজির চোর

নেত্রকোনা প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৮:০৭ ১২ মে ২০২১   আপডেট: ১৮:৫৪ ১২ মে ২০২১

ছবিঃ সংগৃহীত

ছবিঃ সংগৃহীত

চোরকে ধরতে তদন্তের স্বার্থে সিসিটিভি ফুটেজ দেখছিল পুলিশ। একই সময়ে সেই স্থানে এসে নিজেই ধরা দিল চোর। এ সময় তাকে শনাক্ত করে আটক করে পুলিশ। নেত্রকোনার পূর্বধলায় এই ঘটনা ঘটেছে।

জানা গেছে, রোববার ব্যাংক থেকে একটি ফোন চুরির ঘটনায় থানায় জিডি করেন ফোনের মালিক রফিকুল ইসলাম। জিডির প্রেক্ষিতে বুধবার ব্যাংকের সিসিটিভি ফুটেজ দেখছিল পুলিশ। কাকতালীয়ভাবে ঠিক ওই সময়টাতেই ব্যাংকে আসেন ফোন চুরি করা সেই ব্যক্তি।

আটকের পর স্বীকারোক্তি অনুযায়ী তার বাড়ি থেকে মোবাইল ফোনটি উদ্ধার করা হয়। আটক ব্যক্তির নাম হীরা মিয়া। সে উপজেলার আগিয়া ইউনিয়নের ধোবা হোগলা গ্রামের রফিকুল ইসলামের তৃতীয় স্ত্রীর প্রথম পক্ষের ছেলে।

পুলিশ জানিয়েছে, গত ৯ মে টাকা উত্তোলন করতে অগ্রণী ব্যাংকের পূর্বধলা শাখায় আসেন উপজেলার ঘাগড়া দ্বিমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক রফিকুল ইসলাম। তিনি ব্যাংকের কাউন্টারে স্যামসাং এম০২এস মডেলের একটি মোবাইল ফোন রেখে ব্যাংক কর্মকর্তার কাছে চেক জমা দিচ্ছিলেন। তখন সুযোগ বুঝে মোবাইল ফোনটি হাতিয়ে নেন হীরা মিয়া।

পুলিশ আরো জানায়, ঘটনার দিনই রফিকুল ইসলাম পূর্বধলা থানায় সাধারণ ডায়েরি করেন। এর প্রেক্ষিতে বুধবার দুপুরে পুলিশ ব্যাংকের সিসিটিভি ফুটেজ পরীক্ষা করছিল। ওই সময়ই হীরা মিয়া তার বোনকে নিয়ে টাকা উত্তোলন করতে ব্যাংকে আসেন। তখনই তাকে শনাক্ত করা হয়।

পূর্বধলা থানার ওসি মুহাম্মদ শিবিরুল ইসলাম বলেন, হীরা মিয়ার স্বীকারোক্তি অনুযায়ী তার বাড়ি থেকে মোবাইল ফোনটি উদ্ধার করা হয়েছে। তার বিরুদ্ধে মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএইচএফ/আরএম