ইউটিউব দেখে নিজেই বানালেন পিস্তল, গুলি করলেন প্রেমের প্রতিদ্বন্দ্বীকে

ঢাকা, মঙ্গলবার   ১৫ জুন ২০২১,   আষাঢ় ২ ১৪২৮,   ০৩ জ্বিলকদ ১৪৪২

ইউটিউব দেখে নিজেই বানালেন পিস্তল, গুলি করলেন প্রেমের প্রতিদ্বন্দ্বীকে

মানিকগঞ্জ প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৭:৫৩ ৯ মে ২০২১   আপডেট: ১৮:১৩ ৯ মে ২০২১

নিজের তৈরি পিস্তলসহ গ্রেফতার তৌফিকুর রহমান সীমান্ত

নিজের তৈরি পিস্তলসহ গ্রেফতার তৌফিকুর রহমান সীমান্ত

মানিকগঞ্জে প্রেমে বাধা হয়ে দাঁড়ানো ছোট ভাইকে শিক্ষা দিতে তৌফিকুর রহমান সীমান্ত নামে এক যুবক ইউটিউব দেখে পিস্তল তৈরি করেছেন। এরপর সেই পিস্তল দিয়ে ছোট ভাই এহিয়া হোসেন মির্জা ওরফে নূর মোহাম্মদকে গুলি করে আহত করেছেন তিনি।

শনিবার রাতে মানিকগঞ্জ শহরের এলজিইডি অফিসের পাশে এ ঘটনা ঘটে। আহত এহিয়া হোসেন মির্জাকে সাভারের একটি বেসরকারি মেডিকেল কলেজ হাসপাতলে ভর্তি করা হয়েছে।

অভিযুক্ত তৌফিকুর রহমান সীমান্ত মানিকগঞ্জ সদর উপজেলা জয়রা এলাকার মাসুদুর রহমানের ছেলে।

মানিকগঞ্জ সদর সার্কেল অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ভাস্কর সাহা জানান, তৌফিকুর রহমান সীমান্ত ছবি আঁকা, ইনটেরিয়র ডিজাইনসহ সৃষ্টিশীল নানা কাজ করেন। তিনি ৯ম শ্রেণির এক ছাত্রীকে পছন্দ করতেন, কিন্তু ওই ছাত্রীর সঙ্গে তার ছোট ভাই এহিয়া হোসেন মির্জা ওরফে নূর মোহাম্মদের প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। এতে ক্ষুব্ধ হয়ে এহিয়াকে শিক্ষা দেয়ার পরিকল্পনা করেন সীমান্ত।

ভাস্কর সাহা জানান, ইউটিউব দেখে সবচেয়ে কম খরচে কম পরিশ্রমে কীভাবে পিস্তল বানানো যায় সে কৌশল রপ্ত করেন সীমান্ত। এরপর শখের বশেই বানিয়ে ফেলে বারুদ আর সীসার বুলেটের পিস্তল। ওই পিস্তল নিয়ে শনিবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে এলজিইডি অফিসের পাশে এহিয়ার বাসার সামনে গিয়ে তাকে গুলি করে। ওই গুলি এহিয়ার গলায় আঘাত করে। তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য সাভারের একটি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এরপর ওই রাতেই অভিযান চালিয়ে সীমান্তকে সদর উপজেলার নবগ্রামের নানা বাড়ি থেকে আটক করা হয়। নিজের অপরাধ স্বীকার করেছেন সীমান্ত।

এই ঘটনায় আহত এহিয়ার মা নূরজাহান মামলা করছেন। রোববার দুপুরে ওই মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে সীমান্তকে আদালতে পাঠানো হয়েছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/এআর