বিধবাকে মাথা গোঁজার ঠাঁই দিলেন নোয়াখালীর ডিসি

ঢাকা, রোববার   ২০ জুন ২০২১,   আষাঢ় ৬ ১৪২৮,   ০৮ জ্বিলকদ ১৪৪২

বিধবাকে মাথা গোঁজার ঠাঁই দিলেন নোয়াখালীর ডিসি

নোয়াখালী প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৭:৫৪ ৬ মে ২০২১   আপডেট: ১৮:০৫ ৬ মে ২০২১

নোয়াখালীর ডিসি মোহাম্মদ খোরশেদ আলম খান বিধবা মনোয়ারা বেগমকে ঘর নির্মাণের জন্য টাকা প্রদান করেন

নোয়াখালীর ডিসি মোহাম্মদ খোরশেদ আলম খান বিধবা মনোয়ারা বেগমকে ঘর নির্মাণের জন্য টাকা প্রদান করেন

একটি ঘরের জন্য চরম কষ্টে দিন পার করছেন নোয়াখালী সদর উপজেলার নেওয়াজপুর ইউপির বাহাদুরপাড়া গ্রামের অসহায় বিধবা মনোয়ারা বেগম। তার কষ্টের অবসান হচ্ছে।

নোয়াখালীর ডিসি মোহাম্মদ খোরশেদ আলম খান বিধবা মনোয়ারা বেগমকে একটি ঘর তৈরি করে দেয়ার আশ্বাস দিয়েছেন। 

বৃহস্পতিবার দুপুরে ডিসি নিজস্ব তহবিল থেকে ঘর নির্মাণের জন্য ওই বিধবাকে টাকা প্রদান করেছেন।

গত মঙ্গলবার দুপুরে কালবৈশাখী ঝড়ে বিধবা মনোয়ারা বেগমের একমাত্র ঘরটি উড়ে যায়। ঘর নির্মাণের অর্থ না থাকায় তিনি অন্যের বাড়িতে গিয়ে থাকতেন। মাথা গোঁজার ঠাঁই হারিয়ে দিশেহারা হয়ে পড়েছিলেন তিনি।

ডিসি মোহাম্মদ খোরশেদ আলম খান বলেন, বিধবা মনোয়ারা বেগমের একমাত্র ঘরটি ঝড়ে ভেঙে পড়েছে। বিষয়টি দেখে আমার খুব খারাপ লাগে। ঘর নির্মাণ বাবদ নগদ অর্থ দিয়েছি। এছাড়াও স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যানের তত্ত্বাবধানে খুব দ্রুত ঘরটি নির্মাণ করে দেয়া হবে। 

নোয়াখালী সদরের ইউএনও ফারহানা জাহান উপমা বলেন, উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে বিধবা মনোয়ারা বেগমের জন্য টিন ও নগদ অর্থ দিয়েছি।

নেওয়াজপুর ইউপি চেয়ারম্যান এম এ এইচ বাহাদুর বলেন, বিধবা মনোয়ারা বেগম খুব কষ্ট জীবনযাপন করছিলেন। তার বাড়িতে গিয়ে এক মাসের খাদ্যসামগ্রী দিয়ে এসেছি।

সহায়তা পেয়ে বিধবা মনোয়ারা বেগম বলেন, ‘ডিসি স্যার আমাকে মাথা গোঁজার ঠাঁই করে দিলেন। স্যারের কাছে আজীবন ঋণী হয়ে থাকবো। জেলা প্রশাসকের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে তার মঙ্গল ও দীর্ঘায়ু কামনা করেন তিনি।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমকে