মাটিদস্যুদের দিয়েই রাস্তা সংস্কার করে নিলেন শেরপুরের এসিল্যান্ড

ঢাকা, বৃহস্পতিবার   ০৬ মে ২০২১,   বৈশাখ ২৩ ১৪২৮,   ২৩ রমজান ১৪৪২

মাটিদস্যুদের দিয়েই রাস্তা সংস্কার করে নিলেন শেরপুরের এসিল্যান্ড

বগুড়া প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ২২:০৭ ১৯ এপ্রিল ২০২১  

সম্প্রতি অবৈধ মাটির পয়েন্টে অভিযান পরিচালনা করেন এসিল্যান্ড সাবরিনা শারমিন। (ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ)

সম্প্রতি অবৈধ মাটির পয়েন্টে অভিযান পরিচালনা করেন এসিল্যান্ড সাবরিনা শারমিন। (ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ)

সামান্য বৃষ্টিতেই রাস্তাটি কদমাক্ত হয়ে যেত, জমে থাকতো পানি। দীর্ঘদিন ধরে গ্রামবাসী এই রাস্তার কারণে ভোগান্তিতে থাকলেও, তারা নীরব হয়ে থাকতেন। কারণ রাস্তার পাশেই গ্রামের প্রভাবশালী ব্যক্তি আইয়ুব জোয়াদ্দারের অবৈধ মাটির পয়েন্ট। মাটি বহনের কাজে ব্যবহৃত ট্রাকের কারণে রাস্তাটির বেহাল দশা হয়েছিল।

বগুড়া শেরপুর উপজেলার গাড়ীদহ ইউনিয়নের কাফুরা গ্রামে মাটির ওই পয়েন্টে গত ৪ এপ্রিল (শনিবার) অভিযান পরিচালনা করেন সহকারী কমিশনার (ভূমি) সাবরিনা শারমিন। ওই সময় তিনি তিনটি অ্যাসকেভেটর (খননযন্ত্র) ও মাটি বহনের কাজে ব্যবহত একটি ট্রাক জব্দ করেন। এ সময় এসিল্যান্ড সাবরিনার নজরে পড়ে গ্রামটির কাফুরা পূর্বপাড়া থেকে হাজির রোড পর্যন্ত প্রায় ১ কিলোমিটার রাস্তার বেহালদশা। গ্রামবাসীরা এসিল্যান্ডকে বলেন তাদের ভোগান্তির কথা।

সবকিছু দেখে ও গ্রামবাসীর অভিযোগ শুনে মাটিদস্যু আইয়ুবকে গ্রামের ওই রাস্তাটি ঠিক করে দিতে বলেন তিনি। পরে এসিল্যান্ডের কথা অনুযায়ী কয়েকদিন পর আইয়ুব ও তার লোকজন রাস্তাটি সংস্কার করে দেন। এতে গ্রামবাসী ভোগান্তির কবল থেকে রক্ষা পান।

সবকিছু ঠিকঠাক চলছিল। কিন্তু এরমধ্যেই গত দুই-তিন দিন ধরে আবারো মাটি উত্তোলন শুরু করেন আইয়ুব। তবে এবার দিনে নয়, মাটি কাটছিলেন রাতে। এসিল্যান্ড সাবরিনা খবর পেয়ে গত শনিবার আইয়ুবের ওই পয়েন্টে অভিযান চালিয়ে আবারো দুটি  অ্যাসকেভেটর জব্দ করেছেন। তবে ওই সময় মাটিদস্যুরা পালিয়ে যাওয়ায় তাদের আটক করা সম্ভব হয়নি।

স্থানীয়রা জানান, মাটিদস্যু আইয়ুব স্থানীয় প্রভাবশালী ব্যক্তি। তিনি শেরপুর উপজেলার জামায়াতে ইসলামের সাবেক আমির দবির উদ্দিনের ভাগনে। দবির উদ্দিন উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান। একারণে আইয়ুবের বিরুদ্ধে প্রকশ্যে কেউ কিছু বলে না। এসিল্যান্ড অভিযান পরিচালনার পরও আইয়ুব তার ক্যাডার বাহিনী নিয়ে গ্রামে মহড়া দিয়েছেন। 

সম্প্রতি অবৈধ মাটির পয়েন্টে অভিযান পরিচালনা করেন এসিল্যান্ড সাবরিনা শারমিন। (ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ)স্থানীয় ইউপি সদস্য আনোয়ার হোসেনের সঙ্গে কথা হয়। তিনি বলেন, মাটিদস্যুদের কবলে স্থানীয় সড়কগুলোর বেহালদশা হয়ে পড়ে। গ্রামবাসীরা ভয়ে প্রকাশ্যে কিছু বলে না। এসিল্যান্ড সাবরিনা শারমিন অভিযান চালিয়ে কাফুরা গ্রামের অবৈধ মাটির পয়েন্ট বন্ধ করে মাটিদস্যুদের দিয়েই রাস্তার ঠিক করে দিয়েছেন। এতে স্থানীয়দের দুর্ভোগ কমেছে। 

জানতে চাইলে সহকারী কমিশনার (ভূমি) সাবরিনা বলেন, মাটি বহনের কাজে ব্যবহৃত ট্রাকের অবাধ যাতায়াতের কারেণ গ্রামের ওই রাস্তাটি পুরোপুরি নষ্ট হয়ে গিয়েছিল। এতে স্থানীয়রা চরম দুর্ভোগে পড়েছিলেন। অভিযানে অবৈধ মাটি উত্তোলন বন্ধ করে দিয়ে জড়িতদের রাস্তা ঠিক করে দিতে বলেছিলাম। তারা রাস্তা ঠিক করে দিয়েছেন। 

তিনি আরো বলেন, অবৈধ মাটি উত্তোলন বন্ধে ও জনস্বার্থে উপজেলা প্রশাসনের অভিযান অব্যাহত থাকবে।

ডেইলি বাংলাদেশ/আরএম