যত্রতত্র গড়ে উঠছে বেসরকারি ক্লিনিক, বাড়ছে না সেবার মান

ঢাকা, শনিবার   ০৮ মে ২০২১,   বৈশাখ ২৫ ১৪২৮,   ২৫ রমজান ১৪৪২

যত্রতত্র গড়ে উঠছে বেসরকারি ক্লিনিক, বাড়ছে না সেবার মান

করিম ইসহাক, রাজবাড়ী ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৯:৩৫ ১৯ এপ্রিল ২০২১  

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

রাজবাড়ীতে যত্রতত্র ব্যাঙের ছাতার মতো গড়ে উঠেছে বেসরকারি ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টার। যেখানে সেখানে এসব ক্লিনিক গড়ে উঠলেও বাড়েনি সেবার মান। জেলা সিভিল সার্জন অফিসের তথ্যমতে, জেলায় ২৬টি ক্লিনিক ও ৬১টি ডায়াগনস্টিক সেন্টার রয়েছে। 

এর বেশির ভাগ প্রতিষ্ঠানের নেই স্বাস্থ্য বিভাগের লাইসেন্স ও পরিবেশ অধিদফতরের ছাড়পত্র। আবার কিছু প্রতিষ্ঠানের লাইসেন্স থাকলেও সেটির নবায়ন নেই। ফলে মোটা অঙ্কের রাজস্ব ফাঁকি দিয়ে অবৈধভাবে চলছে এসব প্রতিষ্ঠান।

তথ্যমতে, বেসরকারি ক্লিনিকের ক্ষেত্রে সরকারি নীতিমালা অনুযায়ী যে কয়েকজন নিজস্ব ডাক্তার ও ডিপ্লোমা নার্সসহ জনবল থাকার কথা তা নেই কোনো ক্লিনিকে। সরকারি হাসপাতালের ডাক্তারের উপর নির্ভরশীল এসব ক্লিনিক। ডায়াগনস্টিক সেন্টারের পরিস্থিতিও একই রকমের। অধিকাংশ ডায়াগনস্টিক সেন্টারে নেই  প্যাথলজিস্ট টেকনিশিয়ান ও প্রয়োজনীয় যন্ত্রপাতি। তারপরও বছরের পর বছর চলছে এসব প্রতিষ্ঠান। ফলে উন্নত চিকিৎসা সেবার নামে মানুষ ঠকানোর ব্যবসায় পরিণত হয়েছে এসব প্রতিষ্ঠান।  

রাজবাড়ীর সিভিল সার্জন ডা. মো. ইব্রাহিম টিটন বলছেন, যাদের লাইসেন্স নবায়ন বা লাইসেন্স নেই তাদেরকে শিগগিরই লাইসেন্স নবায়ন ও লাইসেন্স করতে বলা হয়েছে। এছাড়াও জেলা প্রশাসকের কাছে যে সমস্ত ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টারের লাইসেন্স নেই বা লাইসেন্সের জন্য আবেদন করেনি তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়ার জন্য অনুরোধ করা হয়েছে।

অবৈধভাবে চলা ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টারের বিরুদ্ধে যথাযথভাবে পদক্ষেপ গ্রহণ করা হলে বাড়বে রাজস্ব আয়। সেইসঙ্গে নিশ্চিত হবে কাঙ্খিত স্বাস্থ্যসেবা, এমন প্রত্যাশা জেলাবাসীর।

ডেইলি বাংলাদেশ/আরএম