চিত্রনায়ক ওয়াসিমের পৈতৃক বাড়ি মেঘনার গর্ভে

ঢাকা, মঙ্গলবার   ১৮ মে ২০২১,   জ্যৈষ্ঠ ৫ ১৪২৮,   ০৫ শাওয়াল ১৪৪২

চিত্রনায়ক ওয়াসিমের পৈতৃক বাড়ি মেঘনার গর্ভে

চাঁদপুর প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৯:৫২ ১৮ এপ্রিল ২০২১  

বাংলা চলচ্চিত্রের সোনালী দিনের চিত্রনায়ক ও শক্তিমান অভিনেতা মেজবাহ উদ্দিন ওয়াসিম

বাংলা চলচ্চিত্রের সোনালী দিনের চিত্রনায়ক ও শক্তিমান অভিনেতা মেজবাহ উদ্দিন ওয়াসিম

সদ্য প্রয়াত চিত্রনায়ক মেজবাহ উদ্দিন ওয়াসিমের জন্ম ১৯৫০ সালে ২৩ মার্চ। তার বাবা মোজাম্মেল হক দেওয়ান ছিলেন পুলিশ কর্মকর্তা। ওয়াসিমের পৈতৃক বাড়ি চাঁদপুরের মতলব উত্তর উপজেলার ফরাজিকান্দি ইউনিয়নের ইন্দরিয়া গ্রামে। কিন্তু পরিবারের সঙ্গে ঢাকায় বসবাসের কারণে গ্রামের বাড়িতে খুব একটা যাতায়াত ছিল না তাদের।

স্থানীয়রা জানায়, ১৯৮৮ সালে তাদের দেওয়ান বাড়ির অস্তিত্ব মেঘনা নদীর গর্ভে বিলীন হয়ে যায়। এরপর ওয়াসিমের পরিবার-স্বজনরা বিভিন্ন স্থানে চলে গেছেন। এখন চাঁদপুরে তাদের কোনো সম্পত্তি নেই।

দীর্ঘদিন অসুস্থ থাকার পর শনিবার (১৭ এপ্রিল) রাত সাড়ে ১২টার দিকে রাজধানীর শাহাবুদ্দিন মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মারা যান প্রখ্যাত এ অভিনেতা। রোববার (১৮ এপ্রিল) গুলশান আজাদ মসজিদে ওয়াসিমের প্রথম জানাজা ও বাদ যোহর বনানী কবরস্থানে দ্বিতীয় জানাজা শেষে সেখানেই দাফন করা হয়।

ওয়াসিম বিয়ে করেছিলেন চিত্রনায়িকা রোজীর ছোটবোনকে। তাদের দুই ছেলেমেয়ে দেওয়ান ফারদিন ও বুশরা আহমেদ। ২০০০ সালে ওয়াসিমের স্ত্রীর মৃত্যু হয়। ২০০৬ সালে মাত্র ১৪ বছর বয়সে মানারাত ইন্টারন্যাশনাল স্কুলের পাঁচতলা থেকে লাফিয়ে পড়ে আত্মহত্যা করেন তার মেয়ে বুশরা। ওয়াসিমের ছেলে ফারদিন লন্ডনের কার্ডিফ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এলএলএম পাস করে ব্যারিস্টার হিসেবে আইন পেশায় নিয়োজিত।

এক সময় বাণিজ্যিক-অ্যাকশনের পাশাপাশি ফোক-ফ্যান্টাসি সিনেমার নায়ক হিসেবে এক নম্বর আসনটি দখলে ছিল ওয়াসিমের। ১৯৭২ সালে ঢাকাই সিনেমায় তার অভিষেক হয় সহকারী পরিচালক হিসেবে ‘ছন্দ হারিয়ে গেলো’র মাধ্যমে। নায়ক হিসেবে যাত্রা শুরু করেন মহসিন পরিচালিত ‘রাতের পর দিন’ সিনেমার মাধ্যমে। দিনদিন ওয়াসিমের জনপ্রিয়তা আকাশ ছুঁতে থাকে। সে সময় বাণিজ্যিক ঘরানার সিনেমার অপরিহার্য নায়ক ছিলেন তিনি। তার মৃত্যুতে চলচ্চিত্রাঙ্গনে নেমে এসেছে শোকের ছায়া।

ডেইলি বাংলাদেশ/এআর