স্বামীর সঙ্গে ঝগড়া, গায়ে আগুন দিয়ে নারীর আত্মহত্যা 

ঢাকা, রোববার   ০৯ মে ২০২১,   বৈশাখ ২৬ ১৪২৮,   ২৬ রমজান ১৪৪২

স্বামীর সঙ্গে ঝগড়া, গায়ে আগুন দিয়ে নারীর আত্মহত্যা 

পঞ্চগড় প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৮:১১ ১৮ এপ্রিল ২০২১   আপডেট: ১৮:২০ ১৮ এপ্রিল ২০২১

হালিমা খাতুনের মরদেহ

হালিমা খাতুনের মরদেহ

পঞ্চগড়ে স্বামীর সঙ্গে ঝগড়া করে গায়ে আগুন দিয়ে হালিমা খাতুন নামে এক নারী আত্মহত্যা করেছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। হালিমা খাতুন পঞ্চগড় সদর উপজেলার কামাতকাজলদিঘী ইউনিয়নের ছোবারভিটা এলাকার কিতাব আলীর স্ত্রী। 

শনিবার সন্ধ্যায় পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে ইফতার করার পর বাড়ির পাশের বাঁশবাগানে গিয়ে শরীরে কেরোসিন তেল ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেন ওই নারী। পরে স্থানীয়দের সহযোগিতায় পরিবারের লোকজন আশঙ্কাজনক অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে পঞ্চগড় আধুনিক সদর হাসপাতালে ভর্তি করে। সেখানে তার অবস্থা  খারাপ হওয়ায় তাকে রংপুর নিয়ে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেয় পরিবারের লোকজন। রংপুর নেয়ার পথেই তার মৃত্যু হয়। 

রোববার ওই নারীর মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তে প্রেরণ করে পুলিশ। তবে এ ঘটনায় তার পরিবারের কারো কোনো অভিযোগ নেই।

ওই নারীর বড় ছেলে হায়দার আলী বলেন, মায়ের মানসিক সমস্যা ছিলো। কারো সঙ্গে কোনো ঝগড়া হয়নি। তবে কেন আত্মহত্যা করলো আমরা ভেবে পাচ্ছি না।

কামাতকাজলদিঘী ইউপি চেয়ারম্যান মোজাহার আলী বলেন, ওই নারীই সংসারের দেখাশুনা করতেন। কিন্তু কি কারণে আত্মহত্যা করলেন বুঝতে পারছি না। বিষয়টি রহস্যজনক।  

পঞ্চগড় সদর থানার এসআই বেলাল হোসেন বলেন, প্রাথমিকভাবে জেনেছি ওই নারী তার স্বামীর সঙ্গে কোনো বিষয়ে ঝগড়া হয়েছিল। সারা দিন রোজা থেকে ইফতারের পর বাড়ির পাশের বাঁশ বাগানে গিয়ে শরীরে কেরোসিন তেল ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেয়। মুহূর্তে আগুন পুরো শরীরে ছড়িয়ে পড়ে। পরে পরিবারের লোকজন তাকে উদ্ধার করে রংপুর নেয়ার পথে তার মৃত্যু হয়। এ ঘটনায় থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা হয়েছে। তার সন্তান বলছেন তার মা মানসিকভাবে অসুস্থ ছিলেন। তাদের কোনো অভিযোগ নেই। বিষয়টি সন্দেহজনক হওয়ায় ঘটনার রহস্য উদঘাটনের চেষ্টা করছি।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমকে