বজলু বাহিনীর তাণ্ডবে অতিষ্ঠ চনপাড়া বস্তিবাসী

ঢাকা, রোববার   ১৬ মে ২০২১,   জ্যৈষ্ঠ ৩ ১৪২৮,   ০৩ শাওয়াল ১৪৪২

বজলু বাহিনীর তাণ্ডবে অতিষ্ঠ চনপাড়া বস্তিবাসী

রূপগঞ্জ (নারায়ণগঞ্জ) প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ২০:৩৭ ১৭ এপ্রিল ২০২১  

চনপাড়া বস্তিতে পুলিশের সতর্ক অবস্থান

চনপাড়া বস্তিতে পুলিশের সতর্ক অবস্থান

নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ উপজেলার চনপাড়া বস্তিবাসী বজলু বাহিনীর অত্যাচার-তাণ্ডবে অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছে। চনপাড়ার ডন খ্যাত বজলু ও তার  বাহিনী প্রকাশ্যে নিরীহ মানুষের ওপর হামলা-ভাঙচুর চালাচ্ছে। গত চারদিন ধরে দফায়-দফায় চলছে তাণ্ডব।

স্থানীয়রা জানায়, প্রশাসন পদক্ষেপ নিলেই চনপাড়া বস্তির নিরীহ মানুষগুলো এ অত্যাচার থেকে মুক্তি পাবে।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, শীতলক্ষ্যা নদীর চনপাড়া-নোয়াপাড়া ঘাটের ২শ’ নৌকা চলাচল বন্ধ করে দিয়ে সেখানে ট্রলার বসিয়ে প্রতিদিন প্রায় ৪০ হাজার টাকা নিজের পকেটে নিত ডন বজলু। মাঝিরা বিভিন্নভাবে প্রতিবাদ জানালেও কোনো সুরাহা হয়নি। উল্টো হয়রানির শিকার হয়েছে তারা।

ভুক্তভোগী মাঝিরা জানান, বুধবার তারা বজলুর অত্যাচার-তাণ্ডবের প্রতিবাদে মিছিল বের করেন। খবর পেয়ে বজলু ও তার বাহিনীর লোকজন তাদের ওপর হামলা চালায়। এরপর থেকে বস্তির বিভিন্ন বাড়িঘরে হামলা-ভাঙচুর ও লুটপাট শুরু করে।

অনুসন্ধানে জানা গেছে, হত্যা, অপহরণ, মাদক ব্যবসা, চাঁদাবাজি, পতিতাবৃত্তি, ছিনতাই, ডাকাতি, সুদের ব্যবসা, চুরিসহ এমন কোনো অপকর্ম নেই যা বজলু বাহিনী করেনি। সে দেশের বিভিন্ন স্থানের শীর্ষ সন্ত্রাসীদেরও আশ্রয়দাতা। প্রভাবশালীদের প্রশ্রয়ে বজলু চনপাড়ার ডন হয়ে উঠেছে। ১৫ বছর ধরে বস্তি নিয়ন্ত্রণ করছে সে। নিজের প্রভাব বজায় রাখতে বস্তিতে সব ধরনের অপরাধমূলক কর্মকাণ্ড চালিয়ে যাচ্ছে বজলু। প্রতি মাসে তার অবৈধ আয় প্রায় ১৫ কোটি টাকা। প্রশাসন বারবার বস্তিতে অভিযান চালিয়েও নাগাল পায়নি তার। অভিযানের খবর পেয়ে আগেভাগেই পালিয়ে যায় সে।

রূপগঞ্জ থানার ওসি জসিমউদ্দিন বলেন, চনপাড়া বস্তি ছোট একটা জায়গা। এখানে প্রায় ৭০ হাজার লোকের বসবাস। বজলু এ এলাকায় ত্রাশ সৃষ্টি করে চলেছে। আমরা অভিযান শুরু করলেই সে খবর পেয়ে গা ঢাকা দেয়।

তিনি আরো বলেন, বস্তিতে চলমান পরিস্থিতির বিষয়ে আমরা সতর্ক আছি। অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। পরিস্থিতি আপাতত নিয়ন্ত্রণে আছে। বজলু ও তার বাহিনীর লোকদের ধরতে অভিযান চলছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/এআর