নারায়ণগঞ্জে হেফাজতের আমিরসহ চার নেতা রিমান্ডে

ঢাকা, সোমবার   ১৭ মে ২০২১,   জ্যৈষ্ঠ ৩ ১৪২৮,   ০৪ শাওয়াল ১৪৪২

নারায়ণগঞ্জে হেফাজতের আমিরসহ চার নেতা রিমান্ডে

নারায়ণগঞ্জ  প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৯:৩২ ১২ এপ্রিল ২০২১   আপডেট: ১৯:৩৮ ১২ এপ্রিল ২০২১

গ্রেফতারকৃত চার হেফাজত নেতার তিন দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেছে আদালত

গ্রেফতারকৃত চার হেফাজত নেতার তিন দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেছে আদালত

নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ের রয়্যাল রিসোর্টে মামুনুল হক ইস্যুতে হামলা, ভাঙচুর ও মহাসড়কে নাশকতা সৃষ্টির মামলায় প্রধান আসামি খেলাফত মসলিশের সভাপতি ও হেফাজত নেতা মাওলানা ইকবাল হোসেনসহ গ্রেফতারকৃত চার হেফাজত নেতার তিন দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেছে আদালত।

সোমবার বিকেলে গ্রেফতারকৃতদের পুলিশ দুই মামলায় তাদের সাত দিনের করে রিমান্ড চেয়ে নারায়ণগঞ্জ সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আহম্মেদ হুমায়ুন কবিরের আদালতে পাঠানো হলে আদালত প্রত্যেকে তিন দিনের করে রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

রিমান্ডের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন নারায়ণগঞ্জ কোর্ট পুলিশ পরিদর্শক আসাদুজ্জামান।

গ্রেফতারকৃতরা হলেন খেলাফত মজলিশ সোনারগাঁ উপজেলার শাখার সভাপতি ইকবাল হোসেন, হেফাজত ইসলাম সোনারগাঁও উপজেলা শাখার আমির হাফেজ মাওলানা মহিউদ্দিন খাঁন, সেক্রেটারি মাওলানা মো. শাহজাহান খাঁন শিবলী ও সহসভাপতি হাফেজ মোয়াজ্জেম হোসেন।

র‌্যাব-১১ এর অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল খন্দকার সাইফুল আলম জানান,  গত ৩ এপ্রিল হেফাজত ইসলামের কেন্দ্রীয় যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা মামুনুল হক একজন নারীসহ সোনারগাঁয়ের ‘রয়েল রিসোর্টে’ সন্দেহজনকভাবে স্থানীয় জনতার হাতে অবরুদ্ধ হওয়ার পর বিক্ষুব্ধ হেফাজতকর্মীরা রয়েল রিসোর্ট ভাঙচুরসহ এলাকায় তাণ্ডব সৃষ্টি করে। রয়েল রিসোর্ট ছাড়াও হেফাজতকর্মীরা ঘটনার দিনে সোনারগাঁও এলাকার একাধিক ব্যবসা প্রতিষ্ঠানসহ ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে ব্যাপক সহিংসতা, গাড়ি ভাঙচুর, নাশকতা সৃষ্টি ও অগ্নিসংযোগ করে যান চলাচলে ব্যাঘাত ঘটায়, জনমনে ভয়ভীতি সঞ্চার এবং সরকারি কাজে বাধা সৃষ্টি করে। ওই সময় সোনারগাঁও উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স মসজিদের ইমাম ও খেলাফতে মজলিশ সোনারগাঁ উপজেলা শাখার সভাপতি মাওলানা মো. ইকবাল হোসেন মাগরিবের নামাজের পর মসজিদের মাইকে উস্কানিমূলক বক্তব্য প্রচার করে লোক জমায়েত করে এবং ওই হামলার নেতৃত্ব দেন।

ওই ঘটনায় সোনারগাঁ থানায় ক্ষতিগ্রস্ত ব্যক্তিরা ও পুলিশ বাদী হয়ে সন্ত্রাস বিরোধী আইনে পৃথক ৬টি মামলা করে। গ্রেফতারকৃতরা ওইসব মামলার অন্যতম এজাহারভুক্ত আসামি।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএইচ