মায়ের সংগ্রামে ছেলের স্বপ্ন পূরণ

ঢাকা, রোববার   ১১ এপ্রিল ২০২১,   চৈত্র ২৮ ১৪২৭,   ২৭ শা'বান ১৪৪২

মায়ের সংগ্রামে ছেলের স্বপ্ন পূরণ

কুষ্টিয়া প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৩:৩৮ ৮ মার্চ ২০২১  

মায়ের কোলে ছেলে মালেক শেখ

মায়ের কোলে ছেলে মালেক শেখ

মায়ের তুলনা হয় না। পৃথিবীর সব মা-ই সন্তানদের কাছে সবচেয়ে আপন ও আস্থার জায়গা। তেমনই এক মা কুরাতন বেগম। যিনি নিজের ছেলের জন্য সংগ্রাম করে চলেছেন। কোলেপিঠে করে ছেলেকে স্কুল, কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়িয়েছেন। মায়ের এমন সংগ্রামেই স্বপ্ন পূরণ হয়েছে ছেলের।

কুরাতন বেগমের ছেলের নাম মালেক শেখ। জন্ম থেকেই শারীরিক প্রতিবন্ধী ২৯ বছর বয়সী ছেলেটি। দুটি পা-ই বাঁকা। কারো সহযোগিতা ছাড়া চলাফেরা করতে পারেন না।

সন্তান প্রতিবন্ধী হলেও কখনো ভালোবাসা কমেনি কুরাতন বেগমের। শিশুকাল থেকেই কোলেপিঠে করে বড় করে তুলেছেন। বড় হয়ে চাকরি পাওয়ার পরও মায়ের আঁচলের গভীর ভালোবাসায় আছেন কুষ্টিয়ার মো. মালেক শেখ। মায়ের কোলে চড়েই কর্মস্থলে যান তিনি।

মালেক শেখের বাড়ি মেহেরপুরের মুজিবনগর উপজেলার ভবেরপাড়া গ্রামে। তিনি কুষ্টিয়া পরিবেশ অধিদফতরে ডেটা অ্যান্ট্রি পদে চাকরি করেন। থাকেন শহরের চৌড়হাস ওয়ার্ডের উকিলপাড়ায়।

রোববার সকালে হঠাৎ উকিলপাড়ায় দেখা গেল মায়ের কোলে চড়ে বের হচ্ছেন মালেক শেখ। তার হাতে একটি ফাইল। জানতে চাইলে মা কুরাতন বেগম জানান, ছেলেকে অফিসে পৌঁছে দিতে যাচ্ছেন। এভাবে প্রতিদিনই সন্তানকে প্রধান সড়ক পর্যন্ত পৌঁছে দেন তিনি। রিকশা বা ইজিবাইকে তুলে দিয়ে বাসায় ফেরেন। পরে বিকেলে আবার অফিসে গিয়ে ছেলেকে নিয়ে আসেন।

কুরাতন বেগম বলেন, আমার তিন ছেলে-মেয়ে। মালেক সবার ছোট। জন্ম থেকেই ছেলেটি শারীরিক প্রতিবন্ধী। দুই পা বাঁকা হওয়ায় একা চলাফেরা করতে পারেন না। মাধ্যমিক পরীক্ষায় জিপিএ-৪.৬ পেয়েছিলেন তিনি। উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হন জিপিএ-৫ পেয়ে। এরপর মেহেরপুর সরকারি কলেজে রাষ্ট্রবিজ্ঞানে স্নাতক পাস করেন।

মালেক জানান, তার কেবল পায়েই সমস্যা নয়, হাতেও সমস্যা রয়েছে। হাত উঁচু করতে পারেন না। এ কারণে মা-ই তাকে গোসল করিয়ে দেন। অফিসে হুইল চেয়ারে বসে কাজ করেন।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমআর