জয়পুরহাটে বিপুল পরিমাণে নিষিদ্ধ পপি গাছসহ আটক পাঁচ

ঢাকা, শুক্রবার   ২৩ এপ্রিল ২০২১,   বৈশাখ ১০ ১৪২৮,   ১০ রমজান ১৪৪২

জয়পুরহাটে বিপুল পরিমাণে নিষিদ্ধ পপি গাছসহ আটক পাঁচ

জয়পুরহাট প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৬:০৭ ৭ মার্চ ২০২১  

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

জয়পুরহাট সদর উপজেলার পুরানাপৈল বনখুর মাঠে নিষিদ্ধ ফসল পপির চাষ হয়েছে। তরকারির সুস্বাদু উপাদেয় পোস্তদানা মসলার জন্য যে পপি চাষ তা না জেনেই এক জনের চাষে উদ্বুদ্ধ হয়েছেন অনেক কৃষকই। এভাবেই জেলায় পপি চাষের বিস্তার লাভ করে। 

কৃষি বিভাগের তথ্যে এ ফসল নিষিদ্ধ বলে ঘোষিত হওয়ায় পপি ক্ষেত কেটে তা আটকসহ পাঁচজনকে আটক করেছে র‌্যাব।

আটকরা হলেন- জয়পুরহাট সদর উপজেলার বনখুর গ্রামের বিপুল চন্দ্র দাসের ছেলে রাজেন্দ্রনাথ দাস, রুপচাঁন মন্ডলের ছেলে নইমুদ্দিন মন্ডল, বড়তাজপুর গ্রামের মৃত ইয়াকুব আলীর ছেলে গোলাম মোস্তফা, পাঁচবিবি  উপজেলার পুর্ব বালিঘাটা গ্রামের আব্দুল রউফ ওরফে রবের ছেলে রিপন সর্দার ও বালিঘাটা বাজারের মৃত কুমুন্ড বিহারী দাসের ছেলে নেপাল চন্দ্র দাস।

জয়পুরহাট র‌্যাব-৫  ক্যাম্পের অতিরিক্ত এসপি এম এম মোহাইমেনুর রশিদ জানান, জয়পুরহাট সদর উপজেলার পুরানাপৈল বনখুর গ্রামে তরকারির সুস্বাদু উপাদেয় মসলা ভেবে তিন বছর আগে পপি চাষ শুরু হয়। অল্প খরচে পপি চাষ করে অধিক টাকা লাভ হওয়ায় বর্তমানে এ ফসলের চাষ বেড়েছে প্রায় ৭ বিঘা। 

এই গ্রামে বর্তমানে মরণ নেশা আফিমের কাঁচামাল হিসেবে এই পপি চাষ করেছেন পাঁচজন কৃষক। গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে রোববার দুপুরে পপি ক্ষেতগুলো কেটে সেগুলো আটক করেছে জয়পুরহাট র‌্যাব ক্যাম্প সদস্যরা।  

তিনি আরো বলেন, ওই ৭ বিঘা জমিতে ৪ লাখ ২৩ হাজার ৫০০ গাছে ১৬ লাখ ৯৪ হাজার পপি ফল ক্ষেত থেকে কেটে তা র‌্যাব হেফাজতে নেয়ার পর সেগুলো ধ্বংস করা হয়। এ ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে ওই ৫ চাষীকে আটক করা হয়েছে।

তিনি আরো জানান, আটকদের জয়পুরহাট সদর থানায় সোপর্দ করা সহ সংশ্লিষ্ট আইনে মামলা করা হয়েছে।
 

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএস