সোনাগাজীতে মাদরাসাছাত্রকে পিটিয়ে জখম, শিক্ষক গ্রেফতার

ঢাকা, শনিবার   ১০ এপ্রিল ২০২১,   চৈত্র ২৮ ১৪২৭,   ২৬ শা'বান ১৪৪২

সোনাগাজীতে মাদরাসাছাত্রকে পিটিয়ে জখম, শিক্ষক গ্রেফতার

ফেনী প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৪:২৪ ৭ মার্চ ২০২১   আপডেট: ১৬:৫৫ ৭ মার্চ ২০২১

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ফেনীর সোনাগাজীতে পড়া না পারায় এক মাদরাসা শিক্ষকের বিরুদ্ধে ছাত্রকে বাঁশের টুকরো দিয়ে পিটিয়ে জখম করার অভিযোগ উঠেছে। শনিবার বিকেলে উপজেলার কুঠিরহাট জামেয়া ইসলামিয়া দারুল উলুম মাদরাসায় এ ঘটনা ঘটে। 

এ ঘটনায় করা মামলায় রাতেই কুঠিরহাট এলাকা থেকে মাদরাসাটির প্রধান শিক্ষক মো. ইসমাইল হোসেনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

আসাদ উল্যাহ নামের শিশুটি মাদরাসার চতুর্থ শ্রেণির ছাত্র। শিশুটির মা ফাতেমা আক্তার মাদরাসার প্রধান শিক্ষককে আসামি করে সোনাগাজী মডেল থানায় মামলা করেন। সেই মামলায় অভিযুক্ত ইসমাইল হোসেনকে গ্রেফতার দেখানো হয়েছে।

পুলিশ, পরিবার ও মামলা সূত্রে জানা যায়, জামেয়া ইসলামিয়া দারুল উলুম কুঠিরহাট মাদ্রাসার প্রধান শিক্ষক মো. ইসমাইল হোসেন গতকাল বিকেলে পড়া না পারায় মাদ্রাসার চতুর্থ শ্রেণির ছাত্র আসাদ উল্যাহকে বাঁশের টুকরো দিয়ে পিটিয়ে জখম করেন। পরে মাদ্রাসার একটি কক্ষে আটকে রাখেন। সন্ধ্যা সাড়ে সাতটার দিকে মাদ্রাসার এক শিক্ষার্থীর মাধ্যমে খবর পেয়ে আসাদ উল্যাহর মামা মো. সুমন স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) সদস্য ওমর ফারুকসহ এলাকাবাসীর সহযোগিতায় শিশুটিকে উদ্ধার করেন। পরে কুঠিরহাট বাজারে একটি ক্লিনিকে শিশুটিকে চিকিৎসা দেয়া হয়।

শিশুটির মা ফাতেমা আক্তার অভিযোগ করেন, শিক্ষক ইসমাইল হোসেন পিটিয়ে তার ছেলের বাঁ পা ও হাতের কবজি জখম ও রক্তাক্ত করেছেন। এ ছাড়া তার ছেলের শরীরের বিভিন্ন স্থানে জখম হয়েছে। ওই শিক্ষকের বিচার দাবি করেন তিনি।

কয়েক দিন আগে চার শিশুকে একইভাবে পিটিয়ে আহত করা হলে বিষয়টি স্থানীয়ভাবে মীমাংসা করা হয়েছে বলে জানান মাদরাসা পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি নুরুল আলম। এ ঘটনাও সমাধান করে দেবেন বলে ওই ছাত্রের অভিভাবকদের বলেন তিনি।

সোনাগাজী মডেল থানার ওসি মো. সাজেদুল ইসলাম বলেন, গ্রেফতার ওই শিক্ষককে রোববার আদালতে হাজির করা হবে।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএস/জেএইচ