মাছ চাষে বেকারত্ব দূর

ঢাকা, রোববার   ১১ এপ্রিল ২০২১,   চৈত্র ২৮ ১৪২৭,   ২৭ শা'বান ১৪৪২

মাছ চাষে বেকারত্ব দূর

কুষ্টিয়া প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৩:৪১ ৪ মার্চ ২০২১   আপডেট: ১৫:৪৬ ৪ মার্চ ২০২১

কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে বায়োফ্লক পদ্ধতিতে মাছ চাষ ক্রমেই জনপ্রিয় হয়ে উঠছে। 

কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে বায়োফ্লক পদ্ধতিতে মাছ চাষ ক্রমেই জনপ্রিয় হয়ে উঠছে। 

কুষ্টিয়ায় দিনে দিনে জনপ্রিয় হয়ে উঠছে বায়োফ্লক পদ্ধতির মাছ চাষ। ইউটিউবে দেখা মাছ চাষের এ পদ্ধতি অনুসরণ করে এরই মধ্যে অনেক বেকার যুবক সাফল্য পেয়েছেন। জেলার দৌলতপুরে কয়েকজন শিক্ষিত বেকার যুবক প্রথমবার শুরু করেন এ পদ্ধতির মাছ চাষ।

কেউ নিজ বাড়ির আঙিনায়, আবার কেউ বাড়ির ছাদে ছোট ছোট ট্যাংক বসিয়ে অল্প সময় ও স্বল্প খরচে বায়োফ্লক পদ্ধতির মাছ চাষ শুরু করেন।

তেলাপিয়া, শিং, মাগুর, পাবদাসহ বিভিন্ন প্রজাতির মাছ চাষ করার পরিকল্পনাও করছেন তারা। পুকুর কেটে বা অন্যের পুকুর লিজ নিয়ে মাছ চাষ, আর বহু রকমের ঝুট-ঝামেলা কাটিয়ে লাভের অংশ অনেকটাই কম হওয়ায় তারা বায়োফ্লক পদ্ধতিতে মাছ চাষে কাঙিক্ষত সাফল্য বয়ে আনতে পারে বলে মনে করেন এই তরুণ উদ্যোক্তারা।

কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে বায়োফ্লক পদ্ধতিতে মাছ চাষ ক্রমেই জনপ্রিয় হয়ে উঠছে। 

উপজেলার গোলাবাড়ীয়া এলাকার যুবক অ্যাডভোকেট শিহাব ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে আইনে উচ্চতর ডিগ্রি লাভ করে বেকার বসে না থেকে প্রশিক্ষণ নিয়ে বায়োফ্লক পদ্ধতিতে নিজ বাড়ির আঙিনায় দুটি ৭৫ হাজার লিটার ট্যাংকে ৫০ হাজার তেলাপিয়া মাছের পোনা ছেড়ে মাছ চাষ শুরু করেন। আশানুরূপ লাভের পাশাপাশি এলাকার বেকার যুবকদের কর্মসংস্থানের জন্য নানা রকম পরামর্শ দিয়ে আসছেন এই যুবক।

একই এলাকার শাহিনুর রহমানের ৫০ হাজার লিটার ট্যাংকে ৪০ হাজার তেলাপিয়া মাছের পোনা ও টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ার শপনের বাড়ির ছাদে ১০ হাজার লিটার ট্যাংকে ৩৬ হাজার তেলাপিয়া মাছের পোনা ছেড়ে মাছের চাষ করছেন। 

তারা বলেন, অন্যের অধীনে চাকরি করে নিজের স্বাধীনতাকে বিলীন না করে নিজ বাড়ির আঙিনায় প্রথম প্রজেক্ট হিসেবে বায়োফ্লক পদ্ধতিতে মাছ চাষ, প্রাথমিক অবস্থায় খরচটা একটু বেশি হলেও লাভবান হতে পারবেন বলে জানান এই উদ্যোক্তারা। 

তিন উদ্যোক্তা

এ বিষয়ে উপজেলা মৎস কর্মকর্তা-দৌলতপুর খোন্দকার শহিদুর রহমান জানান, বায়োফ্লক পদ্ধতিতে বেশি ঘনত্বে মাছ চাষ করা সম্ভব, যেখানে খাদ্য খরচ প্রচলিত পদ্ধতির তুলনায় অনেক কম এবং মাছের উৎপাদন হার পুকুর বা জলাশয়ে মাছ চাষের চেয়ে অনেক গুণে বেশি। তাই তরুণ উদ্যোক্তাদের প্রশিক্ষণ ও পরামর্শ দেয়ার কথা জানান তিনি। দৌলতপুরে প্রায় ১০-১২ টি বায়োফ্লক মাছের খামার গড়ে উঠেছে মৎস্য অফিসের পরামর্শ নিয়ে।

বায়োফ্লক পদ্ধতিতে মাছ চাষ করে দেশে আমিষের চাহিদা পূরণের পাশাপাশি বেকারত্ব দূরীকরণে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে বলে মনে করেন সংশ্লিষ্টরা।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমকে/জেএইচ