‘মিষ্টি’ খেতে গিয়ে স্ত্রী-ছেলেকে হারালেন নবনির্বাচিত মেয়র

ঢাকা, সোমবার   ১৯ এপ্রিল ২০২১,   বৈশাখ ৬ ১৪২৮,   ০৬ রমজান ১৪৪২

‘মিষ্টি’ খেতে গিয়ে স্ত্রী-ছেলেকে হারালেন নবনির্বাচিত মেয়র

ফরিদপুর প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ০৮:৪১ ৪ মার্চ ২০২১   আপডেট: ০৮:৪১ ৪ মার্চ ২০২১

দুমড়েমুচড়ে যাওয়া মাইক্রোবাস

দুমড়েমুচড়ে যাওয়া মাইক্রোবাস

দিন কয়েক আগে বিপুল ভোটে মেয়র নির্বাচিত হন নিমাই চন্দ্র সরকার। তাই স্ত্রী-ছেলেসহ আরো কয়েকজনকে নিয়ে গেলেন মিষ্টি খেতে। সবাইকে নিয়ে মিষ্টিও খেলেন ঠিক, কিন্তু ফেরার পথে চিরদিনের জন্য হারিয়েছেন স্ত্রী আর ছেলেকে। দ্রুতগতির একটি বাস তাদের বাঁচতে দিল না।

বুধবার রাতে হৃদয়বিদারক ঘটনাটি ঘটেছে ফরিদপুরের নগরকান্দা উপজেলার কাইচাইল ইউনিয়নের কালের মোড় এলাকায়। মেয়রের স্ত্রী-ছেলে ছাড়াও এ ঘটনায় আরো একজন নিহত হয়েছেন। এছাড়া আহত হয়েছেন মেয়রসহ আরো কয়েকজন।

নিহতরা হলেন- নগরকান্দা পৌরসভার নবনির্বাচত মেয়র নিমাই চন্দ্র সরকারের স্ত্রী সঞ্চিতা সরকার, ছেলে গৌরব সরকার ও পৌর যুবলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক কামাল মাতুব্বর।

আহত মেয়রকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় রাত ১টা ১০ মিনিটে বিমান বাহিনীর বিশেষ এয়ার অ্যাম্বুলেন্সে ফরিদপুর থেকে ঢাকায় পাঠানো হয়েছে।

স্থানীয়রা জানায়, স্ত্রী-ছেলেসহ কয়েকজনকে সঙ্গে নিয়ে ঐতিহ্যবাহী ভাঙ্গার মিষ্টি খেতে যান পৌর মেয়র নিমাই চন্দ্র সরকার। সেখান থেকে মাইক্রোবাসে নগরকান্দায় বাড়িতে ফিরছিলেন। কালের মোড় এলাকায় পৌঁছালে বিপরীত থেকে আসা চট্টগ্রামগামী জিএস পরিবহনের একটি বাস তাদের মাইক্রোবাসকে ধাক্কা দেয়। এতে ঘটনাস্থলেই মেয়রের স্ত্রী সঞ্চিতা সরকার ও কামাল নিহত হন। ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়ার পথে মেয়রের ছেলে গৌরব সরকারেরও মৃত্যু হয়।

মেয়রসহ গুরুতর আহতদের ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। কিন্তু মেয়রের অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় রাতেই এয়ার অ্যাম্বুলেন্সে ঢাকায় নেয়া হয়।

ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সার্জারি বিভাগের বিভাগীয় প্রধান রতন কুমার সাহা বলেন, দুর্ঘটনায় গুরুতর আহত পৌর মেয়র নিমাই সরকারকে প্রাথমিকভাবে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। কিন্তু শারীরিক অবস্থার অবনতি হওয়ায় তাকে ঢাকার সিএমএইচে স্থানান্তর করা হয়েছে।

আহত শাওন নামে এক বাসযাত্রী বলেন, আমাদের বাসটি রাস্তার সঠিক পাশ দিয়ে আসছিল। কিন্ত মাইক্রোবাসটি হঠাৎ রাস্তা ক্রস করতে গেলে বাসের ধাক্কা লেগে ১০০ ফুট দূরে খাদের মধ্যে পড়ে যায়। ঘটনাস্থলে দুজন ও হাসপাতালে নেয়ার পথে আরো একজন মারা যান।

ভাঙ্গা হাইওয়ে থানার ওসি ওমর ফারুক জানান, দুর্ঘটনায় এ পর্যন্ত মেয়রের স্ত্রী-ছেলেসহ তিনজন নিহত হয়েছেন। আহতরা চিকিৎসাধীন রয়েছেন। লাশ ময়নাতদন্ত ছাড়াই পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হবে।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমআর