কাপড়ের মার্কেটে অগ্নিকাণ্ড, পুড়ল ব্যবসায়ীর ঈদের মজুত

ঢাকা, বৃহস্পতিবার   ১৫ এপ্রিল ২০২১,   বৈশাখ ২ ১৪২৮,   ০২ রমজান ১৪৪২

কাপড়ের মার্কেটে অগ্নিকাণ্ড, পুড়ল ব্যবসায়ীর ঈদের মজুত

নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৩:০০ ৩ মার্চ ২০২১   আপডেট: ১৫:১৫ ৩ মার্চ ২০২১

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ফতুল্লার বাসস্ট্যান্ড এলাকায় ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ পুরাতন সড়ক ঘেঁষে গড়ে উঠা কাপড়ের মার্কেটে অগ্নিকাণ্ড ঘটেছে। এতে ছোট-বড় প্রায় ২০-২৫টি দোকান পুড়ে গেছে। আগুনে প্রায় কোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে দোকান মালিকরা জানিয়েছেন। তবে কোনো হতাহতের ঘটনা ঘটেনি। ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ী ও তার স্বজনদের আহাজারিতে পরিবেশ ভারী হয়ে উঠে।

বুধবার ভোরে আগুনের সূত্রপাত হয়। খবর পেয়ে শহরের মন্ডলপাড়া ও ফতুল্লা বিসিকের  ফায়ার সার্ভিসের ছয়টি ইউনিট আধঘণ্টা চেষ্টা চালিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, ফতুল্লা বাসস্ট্যান্ড সংলগ্ন সোহেলের মালিকানাধীন কাপড়ের মার্কেটের একেবারে পেছনের দোকান থেকে ভোর সাড়ে ছয়টার দিকে আগুনের সূত্রপাত হয়। মুহূর্তের মধ্যেই আগুন ছড়িয়ে পড়ে পার্শ্ববর্তী কাপড়ের দোকানসহ পনির, সোহাগও জাতীয় পার্টি নেতা কাজী হোসেনের মার্কেটের দোকানগুলোতে। ফায়ার সার্ভিসে সংবাদ দিলে তারা এসে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে।

ফতুল্লা থানার এসআই পোদ্দার জানায় অগ্নিকাণ্ডে ক্ষতিগ্রস্ত ২৩ জন দোকান মালিকের নাম তিনি জানতে পেরেছেন। পুড়ে যাওয়া অধিকাংশ দোকানই কাপড়ের ছিলো।

ক্ষতিগ্রস্ত দোকান মালিক আব্বাস জানান, তার দোকানের ভেতর প্রায় ১০ লাখ টাকার  মালামাল ছিল সব পুড়ে গেছে।

আরেক দোকান মালিক সাহাবুদ্দিন জানান, সামনে রমজান এবং ঈদ। সেই টার্গেটেই মালামাল মজুত করেছিলেন। তার দোকান এবং গোডাউনে মিলে প্রায় ১৮ থেকে ২০ লাখ টাকার কাপড় ছিলো। 

ক্ষতিগ্রস্ত রিয়ন জানান, তার প্রায় ১০ লাখ টাকার মালামালসহ মঙ্গলবার হাটের বিক্রির প্রায় ৫০-৬০ হাজার টাকা ক্যাশ বাক্সে ছিলো। সবকিছু পুড়ে গেছে।

একই অবস্থা সামছুল,রনি,মামুন সহ অধিকাংশ দোকানিদের। ক্ষতিগ্রস্ত অধিকাংশ দোকান মালিকদের দাবি, ঈদকে টার্গেট করে তারা কাপড় মজুত করতে শুরু করেছিল। আগুনে তাদের সব পুড়ে গেছে।

ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্সের নারায়ণগঞ্জ অফিসের উপসহকারী পরিচালক আবদুল্লাহ আল আরেফিন জানান, পৌনে সাতটার দিকে ফতুল্লায় কাপড়ের দোকানে আগুন লাগার খবর শুনে সেখানে পৌঁছায় মন্ডলপাড়া ও ফতুল্লা বিসিকের ফায়ার সার্ভিসের ছয়টি ইউনিট। কর্মীরা আধঘণ্টা চেষ্টা চালিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনেন। আগুনের সূত্রপাত হয়েছে কীভাবে হয়েছে তা নিশ্চিত করে না বলতে পারলেও তিনি ধারণা করছেন বৈদ্যুতিক শর্টসার্কিট থেকেই আগুনের সূত্রপাত হয়েছে।
 

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএস/জেএইচ