হত্যাকাণ্ডের তিন মাস পর মাছের ঘেরে মিলল বিচ্ছিন্ন মাথা

ঢাকা, শনিবার   ১০ এপ্রিল ২০২১,   চৈত্র ২৮ ১৪২৭,   ২৬ শা'বান ১৪৪২

হত্যাকাণ্ডের তিন মাস পর মাছের ঘেরে মিলল বিচ্ছিন্ন মাথা

নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ২০:৪৯ ১ মার্চ ২০২১   আপডেট: ২০:৫৯ ১ মার্চ ২০২১

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ে মো. বিল্লাল হোসেন নামে এক মুদি দোকানির হত্যাকাণ্ডের তিন মাস পর বিচ্ছিন্ন মাথা উদ্ধার করেছে পুলিশ।

সোমবার বিকেলে উপজেলার জামপুর ইউপির কলতাপাড়ায় মিরেরটেক এলাকায় একটি মাছের ঘের থেকে মাছ ধরার সময় বাজারের ব্যাগে কুচুরিপানার নিচ থেকে এ মাথা উদ্ধার করা হয়। 

হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় নিহতের স্ত্রী রুমা আক্তার বাদী হয়ে সোনারগাঁও থানায় মামলা দায়ের করেন। তবে পুলিশ এ হত্যাকাণ্ডের তিন মাসেও কোনো রহস্য উদঘাটন করতে পারেনি। 

নিহত বিল্লাল হোসেন কলতাপাড়া মীরেরটেক গ্রামের রেহাজউদ্দিনের ছেলে। বিচ্ছিন্ন মাথা উদ্ধারের পর তালতলা পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ পিবিআইয়ের কাছে হস্তান্তর করেছেন।

ওসি আহসানউল্লাহ জানান, ২০২০ সালে ৬ ডিসেম্বর রোববার রাত ৮টার পর দোকান বন্ধ করে বাড়ি ফেরার উদ্দেশ্যে রওনা হলেও তিনি বাড়ি ফেরেননি। পরিবারের লোকজন মোবাইল ফোনে কল দিলেও ফোন রিসিভ করেননি। পরদিন সকালে বাড়ির পেছনের জঙ্গলে তার ছেলে ফয়সাল হোসেন তার বাবার বিচ্ছিন্ন মরদেহ পড়ে থাকতে দেখে চিৎকার দিলে হত্যাকাণ্ডের বিষয়টি জানাজানি হয়। পরে এলাকাবাসী পুলিশে খবর দিলে ক্রাইম সিনের সদস্যদের সহযোগিতায় মাথাবিহীন মরদেহ উদ্ধার করা হয়। 

আহসানউল্লাহ আরো জানান, মামলাটি বর্তমানে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)তদন্ত করছেন। বিচ্ছিন্ন মাথা উদ্ধারের পিবিআইয়ের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। সব কার্যক্রম পিবিআই সম্পন্ন করছেন। 

ডেইলি বাংলাদেশ/এমকে