উৎসবমুখর পরিবেশে জামালপুরের তিন পৌরসভায় ভোটগ্রহণ চলছে

ঢাকা, শনিবার   ১৭ এপ্রিল ২০২১,   বৈশাখ ৪ ১৪২৮,   ০৪ রমজান ১৪৪২

উৎসবমুখর পরিবেশে জামালপুরের তিন পৌরসভায় ভোটগ্রহণ চলছে

জামালপুর প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ০৯:৪২ ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২১  

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

 

জামালপুরের তিনটি পৌরসভায় নির্বাচন সকাল ৮টা থেকে ইভিএমের মাধ্যমে ভোটগ্রহণ চলছে। বিকেল ৪টা পর্যন্ত এ ভোটগ্রহণ চলবে। জামালপুর, ইসলামপুর ও মাদারগঞ্জ পৌরসভা নির্বাচনে ইভিএমে ভোট প্রদানের জন্য ভোটারদের মধ্যে রয়েছে ব্যাপক উৎসাহ দেখা দিয়েছে।

নির্বাচনে আওয়ামী লীগ, বিএনপিসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের মেয়র ও কাউন্সিলর প্রার্থীরা নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করছেন। নির্বাচনের পরিবেশ শান্তিপূর্ণ রাখতে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেটসহ পর্যাপ্ত পরিমাণ পুলিশ, র‌্যাব ও বিজিবি সদস্য দায়িত্ব পালন করছেন।

প্রথম শ্রেণির জামালপুর পৌরসভায় মোট ১ লাখ ৮ হাজার ৭২৭ জন ভোটার ভোট প্রদান করবেন, যার মধ্যে পুরুষ ভোটার ৫২ হাজার ১৫১ জন ও মহিলা ভোটার ৫৬ হাজার ৫৭৬ জন। জামালপুর পৌরসভায় মেয়র পদে ৩ জন, সাধারণ কাউন্সিলর পদে ৩৯জন ও সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর পদে ১৩জন প্রতিদ্বন্দিতা করছেন।

মেয়র পদে আওয়ামী লীগ মনোনীত মো. ছানুয়ার হোসেন ছানু নৌকা প্রতীকে, বিএনপি মনোনীত অ্যাডভোকেট শাহ মো. ওয়ারেছ আলী মামুন ধানের শীষ প্রতীকে, ইসলামী আন্দোলনের মুফতি মোস্তফা কামাল হাতপাখা প্রতীক নিয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

১২টি ওয়ার্ডের মধ্যে ৫নং ওয়ার্ডে কোন প্রতিদ্বন্দী প্রার্থী না থাকায় বর্তমান কাউন্সিলর রাজীব সিংহ সাহা বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন। পৌরসভার ৪২টি ভোট কেন্দ্রের ৩৪১টি বুথে ভোট গ্রহণ চলছে।

নির্বাচনের সার্বিক আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে ১৬জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট, ১জন জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট, ৭৭০জন পুলিশ সদস্য, র‌্যাবের ৫টি টহল টিম, ৬ প্লাটুন বিজিবি ও ৩৩৬ জন আনসার সদস্য দায়িত্ব পালন করছেন।    
 
প্রথম শ্রেণির ইসলামপুর পৌরসভায় ৩০ হাজার ২৬০ জন ভোটার ভোট প্রদান করবেন, যার মধ্যে পুরুষ ভোটার ১৪ হাজার ৭৮৫ জন ও মহিলা ভোটার ১৫ হাজার ৪৭৫ জন।

ইসলামপুর পৌরসভায় মেয়র পদে চার জন, ৯টি ওয়ার্ডে সাধারণ কাউন্সিলর পদে ৩৩ জন ও সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর পদে ১১ জন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। মেয়র পদে আওয়ামী লীগ মনোনীত আব্দুল কাদের সেখ নৌকা প্রতীকে, আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী এসএম জাহাঙ্গীর আলম জগ প্রতীকে, বিএনপি মনোনীত রেজাউল করিম ঢালী ধানের শীষ প্রতীকে, ইসলামী আন্দোলনের আনিছুর রহমান হাতপাখা প্রতীক নিয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

পৌরসভার ১৩টি ভোট কেন্দ্রের ৯৮টি বুথে ভোট গ্রহণ করা হবে। নির্বাচনের সার্বিক আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে ৯জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট, ১জন জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট, ২৪৫জন পুলিশ, র‌্যাবের তিনটি টহল টিম, ৩ প্লাটুন বিজিবি ও ১০৪ জন আনসার সদস্য দায়িত্ব পালন করবেন।  

প্রথম শ্রেণির মাদারগঞ্জ পৌরসভায় ২৫ হাজার ৩৮ জন ভোটার ভোট প্রদান করবেন, যার মধ্যে পুরুষ ভোটার ১২ হাজার ৩৭৮ জন ও মহিলা ভোটার ১২ হাজার ৬৬০ জন। মাদারগঞ্জ পৌরসভায় মেয়র পদে তিন জন, সাধারণ কাউন্সিলর পদে ২৪ জন ও সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর পদে ৮ জন প্রতিদ্বন্দীতা করছেন। মেয়র পদে আওয়ামী লীগ মনোনীত মির্জা গোলাম কিবরিয়া কবির নৌকা প্রতীকে, বিএনপি মনোনীত আব্দুল গফুর ধানের শীষ প্রতীকে, জাতীয় পার্টি মনোনীত জাহিদ হাসান লাঙল প্রতীক নিয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

৯টি ওয়ার্ডের মধ্যে ৪নং ওয়ার্ডে কাউন্সিলর পদে হাসানুজ্জামান সাগর বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন। পৌরসভার ১০টি ভোট কেন্দ্রের ৮০টি বুথে ভোট গ্রহণ করা হবে। নির্বাচনের সার্বিক আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে ১১ জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট, ১ জন জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট, ১৮৫ জন পুলিশ সদস্যসহ র‌্যাব, বিজিবি ও আনসার সদস্যরা দায়িত্ব পালন করছেন।

জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা গোলাম মোস্তফা জানান, জামালপুর, ইসলামপুর ও মাদারগঞ্জ পৌরসভার নির্বাচন অবাধ ও সুষ্ঠুভাবে পরিচালনার জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। পর্যাপ্ত আইন প্রয়োগকারী সংস্থার সদস্যসহ নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট দায়িত্ব পালন করছেন।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএস