রায় ঘোষণার ৯ বছর পর ধর্ষণ মামলার আসামি গ্রেফতার 

ঢাকা, মঙ্গলবার   ১৩ এপ্রিল ২০২১,   চৈত্র ৩০ ১৪২৭,   ২৯ শা'বান ১৪৪২

রায় ঘোষণার ৯ বছর পর ধর্ষণ মামলার আসামি গ্রেফতার 

শরীয়তপুর প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৮:০১ ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২১   আপডেট: ১৮:০৫ ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২১

ধর্ষণ মামলার যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত পলাতক আসামি হারুন মোল্লা

ধর্ষণ মামলার যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত পলাতক আসামি হারুন মোল্লা

শরীয়তপুরের নড়িয়ায় ধর্ষণ মামলার যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত পলাতক আসামি হারুন মোল্লাকে আদালতের রায় ঘোষণার নয় বছর পর গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়েছে পুলিশ। শুক্রবার রাতে মুন্সিগঞ্জ থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। শনিবার দুপুরে রাতে হারুন মোল্লাকে শরীয়তপুর আদালতের মাধ্যমে জেলা কারাগারে পাঠানো হয়েছে। 

গ্রেফতারকৃত হারুন মোল্লা জেলার নড়িয়া উপজেলার ঘরিসার ইউনিয়নের চরলাউলানি গ্রামের খালেক মোল্লার ছেলে। 

এক গৃহবধূকে ধর্ষণ করেছে হারুন মোল্লা। ২০১২ সালের ৭ আগস্ট শরীয়তপুর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইবুনালে অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় হারুন মোল্লাকে যাবজ্জীবন সাজার আদেশ দেন আদালতের বিচারক। ঘরিষার ইউনিয়নে ২০১০ সালে এই ধর্ষণের ঘটনা ঘটে। এ ব্যাপারে নড়িয়া থানায় একটি মামলা হয়। ঘটনার পর থেকে হারুন মোল্লা পলাতক ছিলেন।

নড়িয়া থানার ওসি হাফিজুর রহমান জানান, ২০১০ সালে ঘরিসার ইউনিয়নে ১৮ বছরের এক গৃহবধূকে ধর্ষণ করে হারুন মোল্লা। এ ঘটনায় নড়িয়া থানায় একটি মামলা হয়। পরে আদালত মামলাটি আমলে নিয়ে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন সংশোধনী ২০০৩ এর ৯(১)- ধারায় সাক্ষ্যপ্রমাণের ভিত্তিতে অভিযুক্ত হারুন মোল্লাকে যাবজ্জীবন সাজার আদেশ দেন। ঘটনার পর থেকে হারুন মোল্লা পলাতক ছিলেন।

ওসি বলেন, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানতে পারি, হারুন মোল্লা মুন্সিগঞ্জ জেলায় আছেন। তিনি বিদেশ যাবেন বলে পরিকল্পনা করছিলেন। শুক্রবার  রাতে নড়িয়া থানা পুলিশের এসআই ইমরান হোসেন, এএসআই বিশ্বজিৎ কুমার মণ্ডলের নেতৃত্বে মুন্সিগঞ্জ থানা পুলিশের সহযোগিতায় তাকে চরাঞ্চল থেকে গ্রেফতার করা হয়।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএইচ