ভাড়াটিয়া খুঁজছেন বাড়িওয়ালারা

ঢাকা, শনিবার   ১৭ এপ্রিল ২০২১,   বৈশাখ ৪ ১৪২৮,   ০৪ রমজান ১৪৪২

ভাড়াটিয়া খুঁজছেন বাড়িওয়ালারা

ভালুকা (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ২০:০৫ ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২১  

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

নতুন বছরের প্রায় দুই মাস পার হতে চললেও ভাড়াটিয়া সংকট কাটছে না ভালুকার বাড়িওয়ালাদের। অনেকেই আশায় ছিলেন নতুন বছরে কাঙ্ক্ষিত ভাড়াটিয়া মিলবে। করোনা মহামারি শুরুর পর থেকেই ভাড়াটিয়াদের অনেকে গ্রামে চলে যাওয়ায় শত শত বাড়িওয়ালার একমাত্র আয়ের পথ বাড়িভাড়া বন্ধ হয়ে গেছে। ফলে দিশাহারা হয়ে পড়েছেন তারা।

ভালুকা পৌর শহরের মেজরভিটা, হাইস্কুল রোড, মধ্যপাড়া, তোতাখার ভিটা, টিএন্ডটি থেকে শুরু করে অলিগলিতেও শত শত ‘টু-লেট’ সাইনবোর্ড সাঁটানো। প্রতিটি ভবনেই কোনো না কোনো ফ্ল্যাট খালি। ভালুকা শহরের স্বাভাবিক সময়ের চেয়ে এখন টু-লেট সাইনবোর্ডের আধিক্য বেশি।

দেশে প্রথম করোনা শনাক্ত হয় ২০২০ সালের ৮ মার্চ। করোনা শনাক্তের ১৮ দিন পর গত ২৬ মার্চ সরকার প্রথম সাধারণ ছুটি ঘোষণা করে। এ সময় অনেকের চাকরি চলে যায়। কারও কারও বেতন কমে যায়। এ কারণে অনেকে পরিবারকে গ্রামের বাড়িতে পাঠিয়ে দেন। আবার অনেকে চাকরি হারিয়ে সপরিবার গ্রামের বাড়িতে চলে যান। ফলে শহরের ভাড়ার বাসা ছেড়ে দেন।

বাড়ি বাড়ি ভাড়াটিয়া সংকটের তীব্রতা স্পষ্ট হয় মেজরভিটা, হাইস্কুল রোড, টিএন্ডটি রোড এলাকায় গেলেই। একসময় শহরের কাঙ্ক্ষিত এলাকায় সাধ্যের মধ্যে ভাড়াবাড়ি পাওয়া যেন ছিল সোনার হরিণ। করোনার কারণে পরিস্থিতি এখন উল্টো।

বাড়িওয়ালারা বলছেন, মহামারির সময় অনেকেই কাজ হারিয়ে শহর ছেড়েছেন। অনেকে গ্রামে গিয়ে আর না ফেরায় বাড়ি ভাড়াও রয়েছে বাকি। ঘর ছাড়ছেনও না, ভাড়াও দিচ্ছেন না। নতুন ভাড়াটিয়া খুঁজে পাওয়া কঠিন হয়ে উঠেছে। ভাড়াটিয়া নেই তাই আয় বন্ধ।

ব্যবসায়ী শরীফ খান বলেন, করোনার কারণে মানুষের আয় কমেছে। স্বল্পআয়ে টিকে থাকতে অনেকে পরিবারকে গ্রামে রেখে নিজে ব্যাচেলর হিসেবে থেকে আয়ের সমতা ঠিক রাখার চেষ্টা করছেন। এ কারণে ভাড়াটিয়া সংকট তীব্র আকার ধারণ করেছে।

ভালুকা বাজার ব্যবসায়ী হাবীব হোসেন বলেন, করোনার বন্ধ দীর্ঘস্থায়ী হওয়ায় বেশিভাগ মানুষের ব্যবসায় ধস নেমেছে। অনেকে হারিয়েছেন চাকরি। বাধ্য হয়ে অনেকেই শহর ছেড়ে গ্রামে পাড়ি জমিয়েছেন। ছেলে-মেয়েদের স্কুল কলেজ বন্ধ। তাই কমেছে ব্যাচেলর ভাড়াটিয়াও। কোথাও কোথাও পরিবারের সবাইকে গ্রামে পাঠিয়ে দিয়ে উপার্জনকারী ব্যক্তি টিকে থাকার লড়াইয়ে কোনো রকম ম্যাচে একটি সিট নিয়ে আছেন। এজন্য ভালুকা শহরের সব জায়গাতেই ভাড়াটিয়া সংকট।

ডেইলি বাংলাদেশ/আরএম