গ্রামীণ নারীদের ভরসা এখন ‘তথ্য আপা’

ঢাকা, রোববার   ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২১,   ফাল্গুন ১৫ ১৪২৭,   ১৫ রজব ১৪৪২

গ্রামীণ নারীদের ভরসা এখন ‘তথ্য আপা’

মেহেরপুর প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৫:৪৮ ২৭ জানুয়ারি ২০২১   আপডেট: ১৭:২০ ২৭ জানুয়ারি ২০২১

প্রতিবন্ধী ভাতা, ভিজিডি কার্ডসহ বিভিন্ন সহযোগিতা করছেন ‘তথ্য আপা’।

প্রতিবন্ধী ভাতা, ভিজিডি কার্ডসহ বিভিন্ন সহযোগিতা করছেন ‘তথ্য আপা’।

প্রযুক্তির ছোঁয়ায় হাতের মুঠোয় এখন সবকিছু। এই প্রযুক্তির সুবিধা ভোগ করছেন গ্রামীণ নারীরা। সেবা দিচ্ছে মহিলা ও শিশুবিষয়ক মন্ত্রণালয়াধীন জাতীয় মহিলা সংস্থা কর্তৃক বাস্তবায়নাধীন ‘তথ্য আপা’র তথ্যকেন্দ্র।

মেহেরপুরের মুজিবনগরও এর ব্যতিক্রম নয়। এ উপজেলার পাড়ায়-পাড়ায় গ্রামীণ নারীদের কাছে এখন সুপরিচিত নাম ‘তথ্য আপা’। ‘তথ্য আপা’র তথ্যকেন্দ্র থেকে গ্রামীণ নারীরা জানতে পারছেন চাকরির খবর, পরীক্ষার ফলাফল, সরকারি বিভিন্ন সেবার তথ্য সরবরাহ। এছাড়াও শিক্ষা, কৃষি ও আইন, প্রাথমিক স্বাস্থ্যসেবা, যেমন ব্লাড প্রেসার পরীক্ষা, ওজন পরিমাপ ও ডায়াবেটিস পরীক্ষা, বয়স্ক, প্রতিবন্ধী ভাতা, ভিজিডি কার্ডসহ বিভিন্ন বিষয়ে তথ্য দিয়ে সহযোগিতা করছেন ‘তথ্য আপা’।

রতনপুর গ্রামের শাহিনা আক্তার বলেন, ইন্টারনেটের দুনিয়া আমাদের কাছে অজানা ছিলো। এতদিন জানা ছিলো না ইন্টারনেটের মাধ্যমে বিভিন্ন প্রয়োজনীয় তথ্য জানা যাবে। এসব কিছুর সমাধান দিচ্ছেন ‘তথ্য আপা’র তথ্যকেন্দ্রের কর্মীরা। তারা বাড়ি-বাড়ি গিয়েও দরিদ্র নারীদের তথ্য ও প্রযুক্তিবিষয়ক বিভিন্ন সেবা প্রদান করছেন। প্রত্যন্ত অঞ্চলে গিয়ে উঠান বৈঠক করে নারীদের বিভিন্ন বিষয়ে সচেতন করে তুলছেন।

ভবেরপাড়ার নাসিমা খাতুন বলেন, মুজিবনগর তথ্যকেন্দ্রটি অসহায় ও সুবিধাবঞ্চিত নারীদের কাছে ভরসা হয়ে উঠছে। গ্রামের নারীরা যেকোনো সমস্যা তথ্যকেন্দ্রের তথ্য আপাদের কাছে বলছেন। ‘তথ্য আপা’রা আমাদের বিভিন্ন সমস্যার সমাধান করে দিচ্ছেন। যেটা তারা পারছেন না সেটা উপজেলার বিভিন্ন দফতরে পাঠিয়ে দিচ্ছেন। সেবা না পাওয়া পর্যন্ত বিষয়টি নিয়ে তারা নিয়মিত পর্যবেক্ষণ করেন। ফলে সহজেই একজন নারী কাঙ্ক্ষিত সেবা পাচ্ছেন তথ্যকেন্দ্রে।

মুজিবনগর তথ্যকেন্দ্রের ‘তথ্য আপা’ খন্দকার তানিয়া জানান, ‘তথ্য আপা’র কর্মীরা উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নে উঠান বৈঠক করে গ্রামীণ নারীদের জীবন জীবিকা সম্পর্কিত তথ্যাদি প্রদান করছেন। স্বাস্থ্যগত সমস্যা, বাল্যবিবাহ, ফতোয়া, নারীর বিরুদ্ধে সহিংসতা, জঙ্গিবাদ প্রতিরোধ, চাকরি সংক্রান্ত তথ্য, আইনি সহায়তা বিষয়ে উঠান বৈঠকগুলোতে নারীদের সচেতন করে তোলা হচ্ছে।

মুজিবনগর তথ্যকেন্দ্রটি কম্পিউটার, ল্যাপটপ, মাল্টিমিডিয়া প্রজেক্টর, ইন্টারনেট কানেকশনসমৃদ্ধ একটি স্বয়ংসম্পূর্ণ তথ্যকেন্দ্র। তথ্যসেবা সহকারী আরো দুইজন কর্মকর্তা আছেন এ কেন্দ্রটিতে।

মুজিবনগর তথ্যকেন্দ্র থেকে গত চার মাসে প্রায় ১৮ হাজার নারীকে সেবা প্রদান করা হয়েছে। এর মধ্যে তথ্যকেন্দ্রে সেবা গ্রহীতা চার হাজার ৫২০ জন, ডোর টু ডোর সেবা গ্রহীতা ১১ হাজার ৮৯০ জন এবং ২৬টি উঠান বৈঠকের সেবা গ্রহীতা এক হাজার ৩৫০ জন।

মুজিবনগরের ইউএনও সুজন কুমার বলেন, উপজেলা প্রশাসনের সার্বিক দিকনির্দেশনা ও মনিটরিংয়ে তথ্যকেন্দ্রের সব কার্যক্রম সুষ্ঠুভাবে বাস্তবায়ন হচ্ছে। আমি অনেক উঠান বৈঠকে উপস্থিত থেকে নারীর অধিকার ও বিভিন্ন সামাজিক সমস্যা ও তার সমাধানের বিষয়টি আলোচনা করে থাকি।

মুজিবনগর তথ্যকেন্দ্রের তথ্য আপা খন্দকার তানিয়া বলেন, ‘তথ্য আপা’ প্রকল্প এসডিজির লক্ষ্যমাত্রায় নারীর ক্ষমতায়ন ও অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ডে নারীর সমান ভূমিকা নিশ্চিতকরণে কাজ করছে। গ্রামের সুবিধাবঞ্চিত কিংবা কম সুবিধাপ্রাপ্ত নারীদের তথ্যপ্রযুক্তির ব্যবহারের মাধ্যমে তাদের স্বাবলম্বী হিসেবে গড়ে তোলার লক্ষ্যে কাজ করছেন ‘তথ্য আপা’রা।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেডএম/এইচএন