নরসিংদীতে প্রবাসীর বাড়িতে লুটপাট-অগ্নিসংযোগ

ঢাকা, শনিবার   ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২১,   ফাল্গুন ১৪ ১৪২৭,   ১৪ রজব ১৪৪২

নরসিংদীতে প্রবাসীর বাড়িতে লুটপাট-অগ্নিসংযোগ

নরসিংদী প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ২০:১১ ২৪ জানুয়ারি ২০২১  

ফাইল ফটো

ফাইল ফটো

নরসিংদীর রায়পুরা উপজেলার ডৌকারচর ইউনিয়নের তেলিপাড়া গ্রামে কামরুজ্জামান নামে এক প্রবাসীর বাড়িতে লুটপাট ও অগ্নিসংযোগের ঘটনা ঘটেছে। শনিবার রাতে এ ঘটনা ঘটে। রোববার সকালে রায়পুরা থানার হাসনাবাদ ফাঁড়ির পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে।

জানা যায়, দুবাই প্রবাসী কামরুজ্জামানের স্ত্রী নাছিমা ঘরের দরজায় তালা লাগিয়ে কুমিল্লায় বাবার বাড়িতে বেড়াতে যান। শনিবার রাতে দুর্বৃত্তরা ওই ঘরের দরজার তালা ভেঙে ভেতরে প্রবেশ করে মূল্যবান জিনিস ও আসবাবপত্র লুটে নেয় এবং চলে যাওয়ার সময় ঘরটিতে আগুন ধরিয়ে দেয়। এতে ঘরে থাকা একটি ফ্রিজ, সিলিং ফ্যান এবং অন্যান্য আসবাবপত্র পুড়ে যায়।

বাড়ির মালিক কামরুজ্জামানের ছোট ভাই প্রতিবেশি সাইফুল ইসলাম জানান, তাদের ধারণা গভীর রাতে দুর্বৃত্তরা তালা ভেঙে ঘরের মালামাল লুট করে চলে যাওয়ার সময় ঘরে আগুন ধরিয়ে দেয়। ফজরের আজানের সময় বাইরে বের হয়ে তিনি তার ভাইয়ের দালান ঘরে আগুনের ধোয়া দেখতে পান এবং এগিয়ে গিয়ে দেখেন ঘরের দরজা খোলা, ভেতরে কোনো দামি জিনিসপত্র নেই, সবকিছু পুড়ে গেছে। খবর পেয়ে বাড়ির মালিক কামরুজ্জামানের বড় বোন মারজিয়া এবং তার স্ত্রী নাছিমাও বাড়িতে আসেন। তারা জানান, ঘরে থাকা একটি বাক্সে কিছু মূল্যবান স্বর্ণালংকার এবং জমির দলিলপত্র ছিল। এখনতো দেখছি কিছুই নেই।

এ ব্যাপরে ডৌকারচর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. মাসুদ ফরাজীর নিকট ফোনে জানতে চাইলে ঘটনার প্রসঙ্গ বলতেই তিনি কল কেটে দেন এবং তার মোবাইল ফোন বন্ধ করে রাখেন।

এলাকাবাসীর অনেকেরই অভিযোগ, মাসুদ ফরাজী চেয়ারম্যান হওয়ার পর ওই এলাকায় অপরাধ বেড়ে গেছে এবং বিচারের ক্ষেত্রে তিনি অপরাধীদের পক্ষ অবলম্বন করেন। এর আগেও তেলিপাড়া এলাকায় কৃষকের সেচ পাম্পের যন্ত্রাংশ এবং তেলিপাড়া প্রাইমারি স্কুলের টিউবওয়েলের পাম্প চুরির ঘটনায় এলাকাবাসীর উদ্যোগে চোর শনাক্ত হওয়ার পর স্থানীয় বিচারকার্যে চেয়ারম্যান চোরের পক্ষ নিয়ে ঘটনা ধামাচাপা দেয়ার চেষ্টা করেন।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএইচ